ঢাকা, রবিবার, ২৬ মে ২০১৯, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬
sristymultimedia.com

প্রচ্ছদ » অর্থনীতি » বিস্তারিত


ss-steel-businesshour24

Runner-businesshour24

'কূটনৈতিক অভাবে বারবার হোঁচট খাচ্ছে চামড়া শিল্প'

আপডেট : 2019-01-19 12:50:48
'কূটনৈতিক অভাবে বারবার হোঁচট খাচ্ছে চামড়া শিল্প'

বিজনেস আওয়ার প্রতিবেদকঃ শিল্প উন্নয়নে সামঞ্জস্যপূর্ণ পরিকল্পনার অভাব আর দুর্বল অর্থনৈতিক কূটনীতির কারণে চামড়া রপ্তানির বিশ্ববাজারে বারবার হোঁচট খাচ্ছে বাংলাদেশ। এ শিল্পের অনগ্রসরতার পেছনে সরকারের অর্থনৈতিক কূটনীতির ব্যর্থতাকে দায়ী করছেন অর্থনীতিবিদরা, পাশাপাশি মালিকপক্ষের চিন্তাধারায়ও পরিবর্তন আনার আহ্বান তাদের।

বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক ডেপুটি গভর্নর ইব্রাহীম খালেদ বলেন, সঠিক পরিকল্পনা ও সরকারের সহযোগিতা এবং কূটনৈতিক অভাব। বাজারের অভাব নেই। আমাদের অক্ষমতার জন্যে পারছি না। চামড়া শিল্পকে স্বাধীন সংস্থা করে দেয়া ভাল হবে।

কাঁচামালের সহজলভ্যতার পাশাপাশি মূল্য সংযোজনের হিসেবে কোনো একটি নির্দিষ্ট খাত থেকে সবচেয়ে বেশি রপ্তানি আয়ের অন্যতম বড় উৎস দেশের চামড়া শিল্প। কিন্তু এ সত্য শুধু কাগজে কলমেই, বাস্তবতা হলো, নানা ধরণের পণ্য উৎপাদনে বাংলাদেশ এখন প্রতি মাসে আমদানি করছে প্রায় ৫০ লাখ বর্গফুট চামড়া।

অথচ, প্রতি বছর দেশে উৎপাদিত ২২ কোটি ঘনফুট চামড়ার প্রায় অর্ধেকই ব্যবহৃত হচ্ছেনা রফতানিযোগ্য পণ্য উৎপাদনে। যার পেছনে চামড়ার আন্তর্জাতিক ক্রেতাজোট লেদার ওয়ার্কিং গ্রুপ-এল ডব্লিউ জি'র ছাড়পত্র না থাকাই মূল কারণ। ট্যানারি মালিকরা বলছেন, সাভারে নতুন শিল্পনগরীই পারতো সব সংকট সমাধান করতে, যদিও তাদের দাবি বিসিকের গাফিলতিতে সংকট বেড়েছে আরও।

মিনিকিন লিমিটেডের চেয়ারম্যান তারিকুল ইসলাম খান বলেন, হেমায়েতপুরে যে চামড়া শিল্পনগরী রয়েছে সেটির ব্যবস্থাপনায় বিসিক সম্পূর্ণ ব্যর্থ। আমাদের ট্রিটমেন্ট প্ল্যান্ট বিভিন্ন কাজ ঠিক মতো না হওয়ার কারণে বিদেশ থেকে চামড়া আমদানি করতে হচ্ছে।

বাংলাদেশ ট্যানার্স এসোসিয়েশনের সভাপতি শাহীন আহমেদ বলেন, বড় বড় শিল্প নগরী পরিচালনা করার অভিজ্ঞতা বিসিকের নেই। ফুটওয়ার ও চামড়া শিল্প প্রতিষ্ঠান বাড়ানো গেলে রফতানি বৃদ্ধি পাবে।

২০২১ সালেই চামড়া রপ্তানি থেকে ৫ বিলিয়ন ডলার আয়ের লক্ষ্য রয়েছে বাংলাদেশের। যদিও শিল্প সংশ্লিষ্টরা মনে করছেন, তিন বিলিয়ন ডলার রপ্তানি হলেও, তা বিবেচিত হবে বড় সাফল্য হিসেবেই।

বিজনেস আওয়ার/১৯ জানুয়ারি,২০১৯/ আরআই

পাঠকের মতামত: