ঢাকা, সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০১৯, ৯ বৈশাখ ১৪২৬
sristymultimedia.com

প্রচ্ছদ » অপরাধ ও আইন » বিস্তারিত


ss-steel-businesshour24

Runner-businesshour24

আইনজীবী রথিশ হত্যায় স্ত্রীর মৃত্যুদণ্ড

আপডেট : 2019-01-29 14:58:51
আইনজীবী রথিশ হত্যায় স্ত্রীর মৃত্যুদণ্ড

বিজনেস আওয়ার প্রতিবেদক (রংপুর) : রংপুরে আইনজীবী রথিশ চন্দ্র ভৌমিক ওরফে বাবুসোনা হত্যা মামলায় তার স্ত্রী দীপা ভৌমিক ওরফে স্নিগ্ধাকে মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। মঙ্গলবার (২৯ জানুয়ারি) দুপুরে রংপুর জেলার সিনিয়র দায়রা জজ আদালতের বিচারক এবিএম নিজামুল হক এ আদেশ দেন।

এর আগে মামলার প্রধান আসামি রথিশ চন্দ্রের স্ত্রী দীপা ভৌমিক ওরফে স্নিগ্ধাকে রংপুর কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে জেলা দায়রা জজ আদালতে নিয়ে আসা হয়। রায় ঘোষণার সময় তিনি আদালতেই ছিলেন।

আলোচিত রথীশ চন্দ্র হত্যা মামলায় মোট ৩৭জন সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ করা হয়। পরে গত চলতি বছরের ২১ জানুয়ারি উভয়পক্ষের যুক্তিতর্ক শেষে মঙ্গলবার রায় ঘোষণার দিন ধার্য করেন আদালত।

এ মামলার চার্জশিটভুক্ত দুই আসামির মধ্যে একমাত্র জীবিত আছেন নিহত রথীশ চন্দ্রের স্ত্রী স্নিগ্ধা সরকার দীপা। তার প্রেমিক কামরুল ইসলাম গত বছরের ১০ নভেম্বর কারাগারে বন্দি থাকা অবস্থায় মারা যান। পরে জানা যায়, গলায় চাদর পেঁচিয়ে তিনি আত্মহত্যা করেছেন।

এ ব্যাপারে আদালতের পিপি আবদুল মালেক গণমাধ্যমকে বলেন, সকল তথ্যপ্রমানের ভিত্তিতে বিচারক একমাত্র আসামি তাঁর স্ত্রী স্নিগ্ধা সরকারে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দেন।

উল্লেখ্য, ২০১৮ সালের ২৯ মার্চ নিখোঁজ হন আইনজীবী রথিশচন্দ্র ভৌমিক। এ ঘটনায় সদর থানায় একটি মামলা করা হলে তদন্তে উঠে আসে রথিশের হত্যার কথা। পরে স্ত্রী দীপা ও তার প্রেমিক কামরুলের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি অনুযায়ী, ৩ এপ্রিল একটি নির্মাণাধীন বাড়িতে পুঁতে রাখা রথিশের লাশ উদ্ধার করা হয়।

২০১৮ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলার চার্জশিট জমা দেয়া হয়। এতে পুলিশ অভিযোগ করে, পরকীয়া প্রেমের জেরে আসামিরা রথিশকে হত্যা করে।

এই মামলার দুই আসামি ইতিমধ্যে কারাগারে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। প্রধান আসামি কামরুল ইসলাম গত বছর ১০ নভেম্বর ও অপর আসামি নিহত আইনজীবীর সহকারী মিলন মোহন্ত গত বছর ১৩ এপ্রিল কারাগারে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

বিজনেস আওয়ার/২৯ জানুয়ারি, ২০১৮/এমএএস

পাঠকের মতামত: