ঢাকা, রবিবার, ২৬ মে ২০১৯, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬
sristymultimedia.com

প্রচ্ছদ » বিনোদন » বিস্তারিত


ss-steel-businesshour24

Runner-businesshour24

আবারও একসাথে আসিফ আকবর-ইথুন বাবু

আপডেট : 2019-02-19 13:22:41
আবারও একসাথে আসিফ আকবর-ইথুন বাবু


বিনোদন ডেস্ক : ২০০১ সাল। কোটি মানুষের মনে যুবরাজ হয়ে স্থায়ী আসন গড়ে নিলেন যে যুবক, তিনি আসিফ আকবর। হয়ে উঠলেন কোটি প্রাণের সুখ-দুঃখ, প্রেম ও অনুভূতির ধারক বাহক। কোটি কোটি ভক্ত তার কণ্ঠে আশ্রয় খুঁজে নিলো যাপিত জীবনের কঠোরতা থেকে একটু জ্যোৎস্নার আবেশ।

গানের আবেগী যাদুকর, বাংলা গানের যুবরাজখ্যাত আসিফ আকবরের সেই রাজকীয় অভিষেক-সঙ্গীত ‘ও প্রিয়া তুমি কোথায়’ এর বয়স এখন ১৮ ছাড়িয়ে ১৯ তম বসন্তে। এখনো যেন সেই গানের উন্মাদনার রেশ এতটুকুও কমেনি।

‘ও প্রিয়া তুমি কোথায়’র এই উন্মাদনায় যুবরাজ আসিফ আকবরের সাথে আরেকটি নাম আষ্টেপৃষ্ঠে জড়িয়ে আছে। তিনি হলেন ইথুন বাবু। কেননা গানটির কথা, সুর ও সঙ্গীত ছিলো ইথুন বাবুর করা।

ও প্রিয়ার পর আর একসাথে কাজ করা হয়নি এই দু’জনের। এবার ১৮ বছর পর আবারও একসঙ্গে গান করলেন এই জুটি। ইথুন বাবুর কথা ও সুরে নতুন একটি গানে কণ্ঠ দিয়েছেন আসিফ আকবর। গানের শিরোনাম ‘চুপচাপ কষ্টগুলো’।

গানটির সঙ্গীতায়োজন করেছেন ইথুন বাবু। গানটি প্রকাশ করছে ‘ধ্রুব মিউজিক স্টেশন’ (ডিএমএস)। ইতিমধ্যে চোখ ধাঁধানো গল্পে গানটির ভিডিও নির্মিত হয়েছে। ভিডিওতে আসিফের সাথে ২য় বারের মতো জুটি বেঁধেছেন মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ প্রতিযোগিতার বহুল আলোচিত প্রতিযোগী জান্নাতুল নাঈম এভ্রিল।

এ প্রসঙ্গে আসিফ আকবর বলেন, ভালো লাগাটা অন্যরকম। কারণ প্রথম কাজ ছিল তার সঙ্গে। অভিমান ছিল, সেটা এখন আর নেই। আবারও নিয়মিত কাজ করার ইচ্ছা আছে। নতুন গানটিও বেশ ভালো হয়েছে। এভ্রিল খুবই আন্তরিকতা এবং দায়িত্ববোধের সাথে কাজটি করেছে। আশা করছি শ্রোতা-দর্শকদের ভালো লাগবে।

ইথুন বাবু বলেন, আমি নিয়মিত গান লিখি, সুর করি। আসিফের সঙ্গে ১৮ বছর ধরে কোনও কাজ করা হয়নি। অনেকদিন পর দুই ভাই একসঙ্গে কাজ করতে পেরে ভালো লাগছে। আশা করছি আসিফের গাওয়া গানটি সবার ভালো লাগবে।

ধ্রুব মিউজিক স্টেশন (ডিএমএস) সুত্রে জানা গেছে, আগামী ২৪ ফ্রেব্রুয়ারি, রবিবার তাদের ইউটিউব চ্যানেলে অবমুক্ত করা হব ‘চুপচাপ কষ্টগুলো’ গানটির ভিডিও পাশাপাশি গানটি শুনতে পাওয়া যাবে ডিএমএস ওয়েবসাইট, জিপি মিউজিক এবং বালালিংক ভাইবে।

বিজনেস আওয়ার/১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮/এমএএস

পাঠকের মতামত: