ঢাকা, শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০১৯, ৬ বৈশাখ ১৪২৬
sristymultimedia.com

প্রচ্ছদ » সারাদেশ » বিস্তারিত


ss-steel-businesshour24

Runner-businesshour24

চায়ের কাপে পিপঁড়া, পুলিশের ক্ষমতার বড়াই

আপডেট : 2019-02-23 11:55:56
চায়ের কাপে পিপঁড়া, পুলিশের ক্ষমতার বড়াই

বিজনেস আওয়ার প্রতিবেদক : চায়ের কাপে পিঁপড়া থাকায় দোকানদার সহ একাধিক এলাকাবাসীকে বেধড়ক পিটিয়েছে সাভার মডেল থানার সিভিল ড্রেসে থাকা কিছু পুলিশ সদস্য। এবং এ বিষয়ে প্রতিবাদ করায় কয়েক জন এলাকাবাসীকে ইয়াবা ব্যবসায়ীর তকমা দিয়ে থানায় ধরে নিয়ে যায় এই পুলিশ সদস্যরা।

গতকাল বেলা ১২ টার দিকে সাভার সরকারি অধর চন্দ্র উচ্চ বিদ্যালয়ের সামনে একটি টং চায়ের দোকানের চায়ে পিঁপড়া থাকায় এই ঘটনা ঘটায় ৪ থেকে ৫ জন সিভিল ড্রেসে থাকা পুলিশ সদস্য।

ঘটনাস্থলে গিয়ে জানা যায়, হরিপদর সরকারের চায়ের দোকানে ৪ থেকে ৫ জন পুলিশ সদস্য চা খেতে আসে। এবং তার চায়ে পিঁপড়া পাওয়ায় তাকে প্রথমে অকথ্য ভাষায় বকাঝকা করে ও এক পর্যায়ে তাকে দোকান থেকে কলার ধরে নামিয়ে বেধড়ক পিটায়।

তখন সেখানে থাকা লোকজন ও পাশের মহিলা দোকানী তার প্রতিবাদ করলে তাদের উপরেও চড়াও হয় পুলিশ সদস্যরা। স্থানীয় জাহিদ প্রতিবাদ করলে জাহিদকে ইয়াবা ব্যবসায়ী বলে গালাগাল ও মারধোর করতে করতে থানার দিকে টেনে নিয়ে যায় তারা। ঠিক সেই মুহূর্তে সেখানে টুটুল নামে একটি স্থানীয় ছেলে তাদেরকে বাধা প্রদান করে, একপর্যায়ে টুটুলের মাথায় পুলিশ সদস্যের হাতে থাকা হ্যান্ডকাপ দিয়ে আঘাত করলে টুটুলের মাথা ফেটে রক্ত বের হয়। পরে স্থানীয় অন্যান্য লোকজনের সহায়তায় উদ্ধার করে স্থানীয় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। তার অবস্থার অবনতি হলে তাকে একটি মানসিক হাসপাতাল প্রেরণ করা হয়।

এ বিষয়ে সাভার মডেল থানা পুলিশের এসআই রুবেলের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ঘটনাস্থলে আমি ছিলাম না যদি কেউ দোষ করে থাকে উপযুক্ত শাস্তি প্রদান করা হবে। আমি পারিবারিক ব্যাপারে ঢাকায় অবস্থান করছি এসে ব্যবস্থা নেব। এবং সেখানে কর্তব্যরত কাউকেই পাওয়া যায়নি। দু একজন অফিসার যারা আছে তারা বলেছে তারা শুনেছেন এরকম একটি অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ঘটেছে।

ভুক্তভোগী জাহিদ হাসান বিজনেস আওয়ারকে বলেন, সামান্য চায়ে পিঁপড়া থাকায় পুলিশ যে আচরণ করেছে তা খুবই লজ্জাজনক। এখানে তারা মূলত তাদের ক্ষমতার অপব্যবহার করেছে। গরিব এ চায়ের দোকানীকে পিটিয়ে নিজেদেরকে হীন মন-মানসিকতার পরিচয় দিয়েছে তারা। এবং অন্যায়ের প্রবাদ করায় আমাকে ইয়াবা ব্যবসায়ী বলে গালাগাল ও মারধর করেছে।

সেখানকার স্থানীয় লোকজনের সাথে কথা বলে ঘটনার সত্যতা জানা গিয়েছে। এলাকাবাসীরা বলে এসব কারনেই পুলিশ তাদের আস্থা জনগণের থেকে হারাচ্ছে। এবং তারা এ দোষী পুলিশ সদস্যদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির জোর দাবি জানিয়েছে।

বিজনেস আওয়ার/২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯/আরএইচ

পাঠকের মতামত: