ঢাকা, শুক্রবার, ২১ জুন ২০১৯, ৮ আষাঢ় ১৪২৬
sristymultimedia.com

প্রচ্ছদ » আন্তর্জাতিক » বিস্তারিত


ss-steel-businesshour24

Runner-businesshour24

'শারীরিক নির্যাতন না হলেও মানসিক হয়রানি করা হয়েছে'

আপডেট : 2019-03-03 10:26:25
'শারীরিক নির্যাতন না হলেও মানসিক হয়রানি করা হয়েছে'

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : ভারতের বিমানবাহিনীর পাইলট অভিনন্দন পাকিস্তানে আটক থাকার সময় তার ওপর মানসিক নির্যাতন চালানো হয়েছিল বলে অভিযোগ উঠেছে। ভারতের এনডিটিভির খবরে বলা হয়েছে, পাকিস্তানের হেফাজতে ৬০ ঘন্টা থাকাকালীন তার ওপর শারীরিক অত্যাচার না হলেও মানসিকভাবে নির্যাতন করা হয়। অভিনন্দন নিজেই এই কথা জানিয়েছেন।

গত বুধবার পাকিস্তানি এফ-১৬ জঙ্গিবিমান থেকে গুলি করে অন্তত একটি ভারতীয় মিগ-২১ ভূপাতিত করা হয়। পাইলট অভিনন্দন বর্তমান প্যারাশুটে করে নেমে এসেছিলেন। নামার পরেই ক্ষুব্ধ স্থানীয় বাসিন্দাদের রোষানলে পড়েন তিনি। প্রাণে বাঁচতে রিভলভার থেকে ফাঁকা গুলিও ছুড়ে ঝাঁপ দেন কাছের একটি পুকুরে। পরে পাকিস্তান সেনাবাহিনীর সদস্যদের হাতে আটক হন অভিনন্দন।

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের ঘোষণার পর শুক্রবার রাতে ওয়াঘা সীমান্ত দিয়ে অভিনন্দনকে ভারতের হাতে ফিরিয়ে দেয়ার আগেই একটি ভিডিও প্রকাশ করে পাকিস্তান সরকার। যেখানে পাকিস্তান সেনাবাহিনীর পেশাদারিত্ব নিয়ে প্রশংসা করতে দেখা যায় তাকে।

ভারতে পা রাখার পর মেডিকেল চেকআপের জন্য তাকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেই হাসপাতালেই তাকে দেখতে আসেন ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী নির্মলা সীতারমন। সংবাদসংস্থা পিটিআই জানিয়েছে, পাকিস্তানের হেফাজতে কাটানো ওই ৬০ ঘন্টার অনেক কথা প্রতিরক্ষামন্ত্রীকে জানান অভিনন্দন বর্তমান।

ভারতীয় পাইলট অভিনন্দন বর্তমানকে গত শুক্রবার (১ মার্চ) রাতে ফিরিয়ে দেয় পাকিস্তান। ওয়াঘা সীমান্ত দিয়ে তাকে ভারতের কাছে হস্তান্তর করে পাকিস্তান। এর আগে গত বৃহস্পতিবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান ভারতীয় এই পাইলটকে মুক্তি দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছিলেন।

এনডিটিভির খবরে বলা হয়েছে, হাসপাতালে এখন ৩৫ বছর বয়সী অভিনন্দনের অনেক ধরনের শারীরিক পরীক্ষা করা হচ্ছে। বলা হচ্ছে, ‘কুলিং ডাউন’ প্রক্রিয়া। ধারণা করা হচ্ছে, রোববার (৩ মার্চ) পর্যন্ত এই প্রক্রিয়া চলবে। এখন বিমানবাহিনীর একটি সামরিক হাসপাতালে রাখা হয়েছে তাকে। এরপর শুরু হবে ‘ডিব্রিফিং সেশন’। এর মধ্য দিয়ে অভিনন্দনের কাছ থেকে পুরো ঘটনার সব বিবরণ শুনবেন সেনা কর্মকর্তারা।

বিজনেস আওয়ার/০৩ মার্চ, ২০১৯/এমএএস

পাঠকের মতামত: