ঢাকা, বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০১৯, ১১ বৈশাখ ১৪২৬
sristymultimedia.com

প্রচ্ছদ » রাজনীতি » বিস্তারিত


ss-steel-businesshour24

Runner-businesshour24

'আপাতত ডায়ালাইসিস লাগবে না কাদেরের'

আপডেট : 2019-03-06 08:34:38
'আপাতত ডায়ালাইসিস লাগবে না কাদেরের'

বিজনেস আওয়ার প্রতিবেদক : সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের আপাতত কিডনি ডায়ালাইসিস লাগবে না বলে জানিয়েছেন তার স্ত্রী বেগম ইসরাতুন্নেসা কাদের। মঙ্গলবার (০৫ মার্চ) রাতে হাসপাতালের চিকিৎসকদের সঙ্গে কথা বলার পর এ তথ্য জানান তিনি।

বেগম ইসরাতুন্নেসা কাদের বলেন, তার অবস্থা স্থিতিশীল আছে। ধাপে ধাপে উন্নতি হচ্ছে। তার কিডনিতে কিছু জটিলতা এবং রক্তে সংক্রমণ ধরা পড়লেও আপাতত ডায়ালাইসিস লাগবে না। ৪-৫ দিনের মধ্যে ভালো হয়ে যাবে বলে আশা করছেন ডাক্তাররা। এটা ঠিক হয়ে গেলে তারা হার্টের বাইপাস সার্জারি করার সিদ্ধান্ত নিতে পারেন।

এর আগে, হৃদরোগে আক্রান্ত ওবায়দুল কাদেরের বাইপাস সার্জারি করার সিদ্ধান্ত হয়েছে বলে জানিয়েছেন মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালের চিকিৎসক দল। মঙ্গলবার ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান তারা। এক সপ্তাহের মধ্যে অস্ত্রোপচার করা হবে বলে জানিয়েছেন তার সঙ্গে থাকা বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালের চিকিৎসক আব্দুল নাসের রিজভী।

এদিকে মাউন্ট এলিজাবেথের হৃদরোগ বিভাগের বিশেষজ্ঞ ডা. ফিলিপ কোহ'র নেতৃত্বে গঠিত মেডিকেল বোর্ড জানিয়েছেন, রক্তচাপসহ কিছু দিকে উন্নতি হওয়ায় ওবায়দুল কাদেরকে দেয়া কৃত্রিম উচ্চচাপ নিয়ন্ত্রণ যন্ত্রের মাত্রা কমিয়ে আনা হচ্ছে।

তবে সার্বিকভাবে তার শারীরিক অবস্থার উন্নতি হলেও কিডনিসহ কিছু সংক্রমণ রয়ে গেছে। সংক্রমণ সারিয়ে তোলা গেলে এক সপ্তাহের মধ্যে বাইপাস সার্জারি সম্ভব বলে জানান তারা। কার্ডিয়াক কন্ডিশন আগের থেকে ইম্প্রুভ করছে, সাথে একটু ইনফেকশন আছে তার।

কিডনি সমস্যাও আছে। তাকে এখনও টিউব পরিয়ে রাখা হয়েছে, এখনও টিউব উঠানোর মত অবস্থায় নাই। এ অবস্থায় রাখলে ঘুম পাড়ানোর ওষুধ দিয়ে রাখতে হয়। হেমোডাইনেমেক্যালি তার স্ট্যাবিলিটি আস্তে আস্তে হচ্ছে। এটা ক্রমান্বয়ে ভালো করছে।

ব্লাড প্রেসারটা আগের থেকে স্থিতিশীল হয়েছে। একই সাথে কৃত্রিম প্রেসার নিয়ন্ত্রণের যন্ত্রের মাত্রা আস্তে আস্তে কমিয়ে আনা হচ্ছে। সার্জারির জন্য প্রস্তুত হতে আর ৫-৭ দিন সময় লাগবে বলে ধারণা করেছে মেডিকেল টিম।

বিজনেস আওয়ার/০৬ মার্চ, ২০১৯/এমএএস

পাঠকের মতামত: