ঢাকা, শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০১৯, ৭ বৈশাখ ১৪২৬
sristymultimedia.com

প্রচ্ছদ » সারাদেশ » বিস্তারিত


ss-steel-businesshour24

Runner-businesshour24

মাভাবিপ্রবি রেজিস্ট্রারের অপসারনের দাবিতে শিক্ষক সমিতির আল্টিমেটাম

আপডেট : 2019-03-06 09:50:16
মাভাবিপ্রবি রেজিস্ট্রারের অপসারনের দাবিতে শিক্ষক সমিতির আল্টিমেটাম

তপু আহমেদ (টাঙ্গাইল) প্রতিবেদক : মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক বাসে কর্মকর্তাদের উঠে পড়ার ঘটনায় রেজিস্ট্রারের অপসারনসহ ৩ দফা দাবিতে ১২ মার্চ পর্যন্ত আল্টিমেটাম দিয়েছে শিক্ষক সমিতি। মঙ্গলবার শিক্ষক লাউঞ্জে এক জরুরী সভার পর ভাইস চ্যান্সেলর বরাবর এ ৩ দফা দাবি জানিয়ে স্মারক লিপি প্রদান করা হয়। ১২ তারিখের মধ্যে দাবি আদায় না হলে কর্মবিরতিতে যাবেন বলেও তারা ঘোষনা দিয়েছেন।

গত ২৭ ফেব্রুয়ারি পরিবহন পরিচালককে অবরুদ্ধ করে তার সাথে অসৌজন্যমুলক আচরনের জন্য কর্মকর্তাদের ক্ষমা চাওয়া, কর্মকর্তাদের জোড়পূর্বক শিক্ষকদের বাসে উঠার ঘটনায় ডিসিপ্লিনারি কমিটি গঠন করে দোষীদের বিচার, কর্মকর্তাদের শিক্ষকবাসে উঠার জন্য উস্কানি দেয়ায় অযোগ্য রেজিস্ট্রার ড. ইঞ্জি: মোহাঃ তৌহিদুল ইসলামের অপসারন চেয়ে আল্টিমেটাম জানিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরা।

শিক্ষকরা বলেন, ক্ষমা না চাওয়া পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের যানবহনে চড়বেন না। ১২ মার্চের মধ্যে ঘটনার সুষ্ঠ তদন্ত না হলে সকল ধরনের একাডেমিক ও প্রসাশনিক কার্যক্রম থেকে বিরত থাকবেন। জরুরী সভায় শিক্ষকরা জানান, বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রারের ঈন্দনে কর্মকর্তারা উদ্ধাৎপূর্ণ ও জোরপূর্বকভাবে শিক্ষকদের বাসে উঠে পড়ে। রেজিস্ট্রারের সাথে বিএনপি-জামায়াতের সাথে সংশ্লিষ্টতা আছে এমন তথ্য প্রমান তাদের কাছে রয়েছে বলেও জানান তারা।

তারা জানান, শিক্ষকদের প্রোমোশন-আপগ্রেডেশন, স্কলারশিপ ও বিশ^বিদ্যালয় সংশ্লিষ্ট অন্যান্য কাজের জন্য ব্যক্তিগত অনেক তথ্য রেজিস্ট্রারের কাছে দিতে হয়। কিন্তু রেজিস্ট্রার অনেক গোপনীয় তথ্য ফাঁস করে দেন। বিভিন্ন সময় শিক্ষকদের অমূল্যায়ন ও অসম্মানজনক কথা বলেন, কর্মকর্তাদের উস্কানিমুলক কথা বলে শিক্ষকদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন আন্দোলনে নামিয়ে দেন। এ পরিস্থিতে শিক্ষকরা রেজিস্ট্রারকে অনিরাপদ মনে করছেন বলেও সভায় শিক্ষকরা জানান।

পরিবহন কমিটি ও পরিবহন ক্রয় কমিটির আহবায়ক অধ্যাপক ড. এ. কে. এম মহিউদ্দিন বলেন, শিক্ষকরা কখনই কর্মকর্তাদের গাড়ি ক্রয়ে বাধা তৈরি করেনি। কর্মকর্তারা এসি বাস ক্রয়ের ব্যাপারে প্রাথমিকভাবে পরিবহন কমিটিকে কখনই জানায়নি। কর্মকর্তারা পরিবহন কমিটির কাছে এসি গাড়ি ক্রয়ের ব্যাপারে বলেননি বলে ভাইস চ্যান্সেলরের সামনে অফিসার্স এসোসিয়েশনের সভাপতি স্বীকার করেছেন এমন দাবিও করেন তিনি।

তিনি আরো বলেন, তারা ভাইস চ্যান্সেলরের কাছে চেয়েছেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের হিসাব শাখার পরিচালকও জানিয়ে দিয়েছেন কর্মকর্তাদের জন্য এসি গাড়ির অনুমোদন বিশ^বিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউ.জি.সি) দিবে না।

এ বিষয়ে শিক্ষক সমিতির সাধারন সম্পাদক ড. পিনাকী দে বলেন, আমরা শিক্ষকরা মাননীয় ভাইস চ্যান্সেলর বরাবর আমাদের অভিযোগ জানিয়েছি। রিজেন্ট বোর্ডের মাধ্যমে তদন্ত কমিটি গঠন করে দোষীদের শাস্তির দাবি জানিয়েছি। তবে ১২ মার্চের মধ্যে ঘটনার সুষ্ঠ বিচার না হলে আমরা শিক্ষকরা সকল ধরনের একাডেমিক ও প্রশাসনিক কার্যক্রম থেকে বিরত থাকব।

বিজনেস আওয়ার/০৬ মার্চ, ২০১৯/টিএ/এমএএস

পাঠকের মতামত: