ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০১৯, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬
sristymultimedia.com

প্রচ্ছদ » আন্তর্জাতিক » বিস্তারিত


ss-steel-businesshour24

Runner-businesshour24

শ্রীলঙ্কায় সিরিজ বোমা হামলা

আট হামলাকারী শনাক্ত, একজন নারী

আপডেট : 2019-04-25 08:15:05
আট হামলাকারী শনাক্ত, একজন নারী

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : শ্রীলঙ্কার গির্জা ও হোটেলে সিরিজ বোমা হামলার ঘটনায় জড়িত ৯ সন্দেহভাজনের মধ্যে আটজনকে শনাক্ত করা হয়েছে বলে জানিয়েছে লঙ্কান পুলিশ। তাদের মধ্যে একজন নারীও রয়েছে।

হামলাকারীরা সবাই তরুণ-তরুণী এবং তারা শ্রীলঙ্কার নাগরিক। হামলাকারীদের মধ্যে সহোদর দুই মুসলিম ভাইও রয়েছে। জঙ্গিগোষ্ঠী ইসলামিক স্টেটের পক্ষ থেকে এরই মধ্যে হামলার দায় স্বীকার করা হয়েছে।

গতকাল এক সংবাদ সম্মেলনে লঙ্কান উপপ্রতিরক্ষামন্ত্রী রুয়ান বিজয়বর্ধনে জানান, হামলাকারীদের মধ্যে আটজনকে শনাক্ত করা হয়েছে বলে পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

উপমন্ত্রী জানান, হামলাকারীদের একজন যুক্তরাজ্যে পড়ালেখা করেছিল। পরে সে অস্ট্রেলিয়ায় পোস্টগ্র্যাজুয়েট শেষে শ্রীলঙ্কায় ফিরে আসে। তিনি বলেন, অধিকাংশ হামলাকারী সুশিক্ষিত।

তারা মধ্যবিত্ত ও উচ্চ মধ্যবিত্ত পরিবারের সন্তান। তারা আর্থিকভাবে যথেষ্ট সচ্ছল। তাদের পরিবারের আর্থিক অবস্থাও বেশ ভালো।

অন্যদিকে রবিবারের ওই বোমা হামলায় আহত আরো ৩৮ জন মারা গেছে। এ নিয়ে মৃতের সংখ্যা ৩৫৯ জনে দাঁড়িয়েছে। হামলার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে গতকাল বুধবার আরো ১৮ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এ নিয়ে মোট ৫৮ জন সন্দেহভাজনকে গ্রেপ্তার করা হলো।

এই ঘটনায় দেশটির নিরাপত্তা বাহিনীর ব্যর্থতার প্রশ্ন উঠেছে। এ অবস্থায় নিরাপত্তাব্যবস্থা ঢেলে সাজানোর ঘোষণা দেওয়ার ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই প্রেসিডেন্ট মাইত্রিপালা সিরিসেনা প্রতিরক্ষাসচিব ও আইজিপিকে অপসারণ করেছেন। শ্রীলঙ্কার মুসলিমসমাজের পক্ষ থেকে এই হামলায় জড়িতদের দ্রুত শাস্তির দাবি জানানো হয়েছে।

এর আগে গত মঙ্গলবার রাতে শ্রীলঙ্কার প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমাসিংহে সাংবাদিকদের বলেন, হামলার সঙ্গে আইএসের সংশ্লিষ্টতা থাকতে পারে বলে তিনি বিশ্বাস করেন। প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যের আগে মঙ্গলবার হামলার দায় স্বীকার করে জঙ্গিগোষ্ঠী ইসলামিক স্টেট (আইএস)।

এরই মধ্যে শ্রীলঙ্কার পুলিশ জানিয়েছে, তারা মনে করে হামলাকারী স্থানীয় একটি অপরিচিত গোষ্ঠী, যাদের সঙ্গে বিদেশি যোগসূত্র থাকতে পারে। পুলিশ এই যোগসূত্র খতিয়ে দেখছে।

পুলিশের একটি সূত্র এএফপিকে জানিয়েছে, হামলায় দুই মুসলিম সহোদর জড়িত থাকার প্রমাণ মিলেছে। আত্মঘাতী এই দুই ভাই রাজধানী কলম্বোর ধনাঢ্য এক মসলা ব্যবসায়ীর ছেলে। তারা শেংরি-লা ও সিনামন গ্র্যান্ড হোটেলে হামলা চালিয়ে নিজেদের উড়িয়ে দেয়। এরই মধ্যে তাদের বাবাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

রুয়ান গুনাসেকারা জানান, হামলায় জড়িত সন্দেহে আরো ১৮ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। জরুরি অবস্থার সুযোগ কাজে লাগিয়ে মঙ্গলবার রাতে বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

তিনি জানান, জড়িত ব্যক্তিদের ধরতে পুলিশ ও নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা অভিযান অব্যাহত রেখেছেন। তিনি বলেন, প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে তিনটি ঠিকানায় অভিযান চালিয়ে ১৭ জনকে এবং আরেকটি পৃথক স্থান থেকে একজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। আরো সন্দেহভাজন ধরতে অভিযান চলছে।

এ বিষয়ে উপপ্রতিরক্ষামন্ত্রী রুয়ান বিজয়বর্ধনে গতকাল সংবাদ সম্মেলনে বলেন, গত রবিবার হামলার পর থেকে এ পর্যন্ত ৫৮ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তিনি বলেন, সরকার আরো হামলার আশঙ্কা করছে।

ভয়াবহ এই আত্মঘাতী বোমা হামলার অন্তত দুই ঘণ্টা আগেও শ্রীলঙ্কার গোয়েন্দা সংস্থাকে সতর্ক করেছিল ভারতের গোয়েন্দা সংস্থা। হামলার ব্যাপারে শ্রীলঙ্কাকে প্রথমে ৪ এপ্রিল সতর্ক করেছিল। পরে রবিবারের হামলার দুই ঘণ্টা আগে আবারও সতর্ক করা হয়েছিল। কিন্তু এ সতর্কতা কাজে দেয়নি।

বিজনেস আওয়ার/২৫ এপ্রিল, ২০১৯/এ

পাঠকের মতামত: