ঢাকা, বুধবার, ২১ আগস্ট ২০১৯, ৬ ভাদ্র ১৪২৬
sristymultimedia.com

প্রচ্ছদ » স্বাস্থ্য » বিস্তারিত


ss-steel-businesshour24

Runner-businesshour24

নড়াইলের ৪ চিকিৎসক ওএসডি

আপডেট : 2019-04-29 08:07:43
নড়াইলের ৪ চিকিৎসক ওএসডি



বিজনেস আওয়ার প্রতিবেদক : নড়াইল-২ আসনের সংসদ সদস্য মাফরাফি বিন মুর্তজার আকস্মিক অভিযানে জেলা সদর হাসপাতালে উপস্থিত না পাওয়ায় চার চিকিৎসককে দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেয়া (ওএসডি) হয়েছে। একই সঙ্গে তাদের কারণ দর্শানোর নোটিশ দিয়েছে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়।

ওএসডি হওয়া ডাক্তাররা হলেন, নড়াইল সদর হাসপাতালের সার্জারির সিনিয়র কনসালটেন্ট ডা. আখতার হোসেন, কার্ডিওলজির জুনিয়র কনসালটেন্ট ডা. শওকত আলী ও ডা. রবিউল আলম এবং মেডিকেল অফিসার ডা. এ এসএম সায়েম।

রোববার (২৮ এপ্রিল) স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের এক প্রজ্ঞাপনে এই চিকিৎসকদের ওএসডি করা হয়েছে। একই সঙ্গে চারজনকে কারণ দর্শাতে ভিন্ন ভিন্ন নোটিশ দেয়া হয়েছে।

এর আগে বৃহস্পতিবার সাড়ে ৩টা থেকে বিকাল সাড়ে ৫টা পর্যন্ত কাউকে কিছু না জানিয়ে টানা ২ ঘণ্টা নড়াইল আধুনিক সদর হাসপাতালে ঝটিকা সফর করেন মাশরাফি বিন মুর্তজা।

নোটিশ বলা হয় আপনার উক্ত কার্যকলাপ সরকারি কর্মচারী (শৃঙ্খলা ও আপিল) বিধিমালা ২০১৮ মোতাবেক অসদাচরণের শামিল। আপনার এহেন আচরণের বিরুদ্ধে কেন বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে না, তা অত্র পত্র প্রাপ্তির তিন কর্মদিবসের মধ্যে ব্যাখ্যা প্রদান করার জন্য নির্দেশক্রমে অনুরোধ করা হল।

সম্প্রতি মাশরাফির ওই হাসপাতাল পরিদর্শনের একটি ভিডিও ফেইসবুকে ভাইরাল হয়। বিকালে হাসপাতালে গিয়ে চিকিৎসকদের না পেয়ে তিনি হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক এবং সার্জারির একজন চিকিৎসকের সঙ্গে ফোনে কথা বলেন।

ভিডিওতে মোবাইলে সার্জনের সঙ্গে কথোপকথনে মাশরাফিকে বলতে শোনা যায়, এসব কথা বললে তো হবে না। আপনি চার্জ দিয়ে চলে গেছেন এটা কেমন কথা? আরে বাবা আপনি তো আজকেই প্রথম তত্ত্বাবধায়ক হননি।

আপনি কালকে এখানে যোগ দিছেন সেটা বিষয় না। কালকে যোগ দিছেন বলে আজকে রুগী মারা যাইতে না পারে এ রকম তো গ্যারান্টি নাই। আচ্ছা এখানে এখন একজন মানুষও নাই, কয়েকজন নার্স আছে। আপনার এখানে নার্সিং সুপারভাইজার যেটা থাকার কথা সেটাও অ্যাবসেন্ট।

আপনি বাসায় গেছেন কেন স্যার, আপনি সেটা আমাকে বুঝাই বলেন। আপনার থাকার কথা নড়াইলে। আজকে যদি এই হসপিটালে কোনো একটা পেশেন্টের সার্জারি প্রয়োজন হয়, আপনি কি সুন্দর বলতেছেন রবিবারে আসেন, আমি রবিবারে সার্জারি করব! তা এই দুদিন আপনার জন্যে পেশেন্ট পড়ে থাকবে?

এখন আপনি বলেন, আপনার কী করব, বলেন? বলেন আপনিই বলেন, আপনারে আমি কী করব বলেন? কী হল কথা বলেন না কেন? আপনি ফাইজলামি শুরু করছেন? আজকে যদি একটা পেশেন্টের প্রয়োজন হয় সার্জারি করার কাকে দিয়ে সার্জারি করাবে? আপনি কি এটা ভাবেননি একবারও?

নড়াইল সদর হাসপাতালে চিকিৎসকদের ৩৯টি পদের মধ্যে আরএমও এবং পাঁচজন সংযুক্তিতেসহ ১৭ জন কর্মরত ছিলেন। তাদের মধ্যে চারজনকে ওএসডি করা হল।

হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. মো. আব্দুস শাকুর বলেন, যেসব চিকিৎসক সময়মতো হাসপাতালে আসেন না তাদের বিরুদ্ধেও পর্যায়ক্রমে প্রশাসনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মাশরাফির পরিদর্শনের দিন তিনজন চিকিৎসক হাসপাতালে অনুপস্থিত ছিলেন। হাজিরা খাতায় তাদের স্বাক্ষর পাননি সাংসদ মাশরাফি। ওএসডি করা চার চিকিৎসকের মধ্যে ওই তিনজন রয়েছেন।

ব্কিালে হাসপাতাল ঘুরে যাওয়ার পর রাত সাড়ে ১০টার দিকে হাসপাতালের কর্মকর্তাদের নিয়ে মতবিনিময় সভা করেন মাশরাফি। হাসপাতালের সম্মেলন কক্ষে ওই সভায় জেলা প্রশাসক আনজুমান আরা, পুলিশ সুপার মো. জসিম উদ্দিন, হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. আব্দুস শাকুর, সিভিল সার্জন ডা. আসাদ-উজ-জামানমুন্সি, হাসপাতালের আরএমও ডা. মশিউর রহমান বাবু উপস্থিত ছিলেন।

বিজনেস আওয়ার/২৯ এপ্রিল, ২০১৯/এ

পাঠকের মতামত: