ঢাকা, শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০১৯, ৪ শ্রাবণ ১৪২৬
sristymultimedia.com

প্রচ্ছদ » জাতীয় » বিস্তারিত


ss-steel-businesshour24

Runner-businesshour24

'ধান পোড়ানোর ঘটনা পরিকল্পিত'

আপডেট : 2019-05-15 14:04:05
'ধান পোড়ানোর ঘটনা পরিকল্পিত'

বিজনেস আওয়ার প্রতিবেদক (টাঙ্গাইল) : টাঙ্গাইলে ধান পোড়ানোর ঘটনাটি পরিকল্পিত। কারণ একজন পিতা তার সন্তান বিকলাঙ্গ হোক না কেন গলাটিপে মেরে ফেলতে পারবে না। ধানের দাম দুইশত টাকা হলেও কৃষক পোড়াবে না। মনে ক্ষোভ হবে। বললেন খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার।

বুধবার (১৫ মে) সকালে ‘অভ্যন্তরীণ বোরো সংগ্রহ অভিযান-২০১৯’ উদ্বোধন উপলক্ষে সিরাজগঞ্জ জেলা সদরের এলএসডি খাদ্যগুদামে জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রণ দফতর আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন।

খাদ্যমন্ত্রী বলেন, কিন্তু এমনই পরিকল্পিত যে, প্রথম আলো পত্রিকার রিপোর্টাররা সকালেই চলে গেল। টিভি সকাল বেলাই চলে গেল। তার পরে ধানে আগুন দেয়া হলো। এটি সরকারকে প্রর্যুদস্ত করার একটা পরিকল্পনা।

তিনি বলেন, আমরা শপথ নিতে চাই প্রকৃত প্রান্তিক কৃষক ছাড়া ধান একটি কেজিও বাইরে কিনতে দেব না। কারণ সরকারকে পর্যুদস্ত করার জন্য নানা ভাবে পরিকল্পনা করা হচ্ছে। কৃষকরা ন্যায্য মূল্য পাচ্ছে না। আমিও একজন কৃষক। ধান বিক্রি করি। আমারও কষ্ট আছে।

আমি এবং কৃষিমন্ত্রী এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা করেছি। কারণ প্রকৃত কৃষকের কাছ থেকে ধান না কেনা পর্যন্ত আমরা কিন্তু কৃষকদেরকে ঠিক মতো মূল্যায়ণ করতে পারবো না। কারণ যে লক্ষ টন ধান কেনা তা এক্কেবারে কম বলে আমি মনে করি।

সরকারকে বিপদে ফেলতে একটি চক্র গণমাধ্যমকর্মীদের সেখানে বিশেষ উদ্দেশে নিয়ে গিয়ে ধানক্ষেতে আগুনের ঘটনা ফলাও করে প্রচার করেছে। তাই এসব অশুভ চক্রান্ত ও পাঁয়তারা কোনোদিনই সফল হবে না।

সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেন, ১০ লক্ষ টন সিদ্ধ চাউল, দেড় লক্ষ টন আতপ চাউল কেনা সম্ভব। কিন্তু ধান এবং চাউল যদি একই গোডাউনে রাখা যায় তাহলে ধান ও ক্ষতিগ্রস্ত হয় চাউল ও ক্ষতি গ্রস্ত হয়।

কৃষকেরা ধান নিয়ে আসার পরে ১৪ শতাংশ ময়েশ্চার যেন না থাকে তখন ওসি এল এস ডিও মনে করে এ ধান নেয়া যাবে না। যতই ঘোরানো যায় ততই মজা পাওয়া যায়। তার ওপর লেবারদের একটি খবরদারি দিয়ে দেয় তোরা অত্যাচার করবি যাতে কৃষকরা চলে যায়। এটা বাস্তব অভিজ্ঞতা থেকে বলছি।

জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক মিজানুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক ইফতেখার উদ্দিন শামীম, পুলিশ সুপার টুটুল চক্রবর্তী, চেম্বার প্রেসিডেন্ট আবু ইউসুফ সূর্য প্রমুখ।

বিজনেস আওয়ার/১৫ মে, ২০১৯/এ

পাঠকের মতামত: