ঢাকা, রবিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৭ আশ্বিন ১৪২৬
sristymultimedia.com

প্রচ্ছদ » বিনোদন » বিস্তারিত


ss-steel-businesshour24

Runner-businesshour24

নায়করাজকে হারানোর দুই বছর আজ

আপডেট : 2019-08-21 14:58:05
নায়করাজকে হারানোর দুই বছর আজ

বিনোদন ডেস্ক : কিংবদন্তি অভিনেতা নায়করাজ রাজ্জাককে হারানোর দুই বছর আজ। ২০১৭ সালের ২১ আগস্ট অসংখ্য ভক্ত ও শুভাকাঙ্ক্ষীদের কাঁদিয়ে না ফেরার দেশে পাড়ি জমান রাজ্জাক।

তার দ্বিতীয় মৃত্যুবার্ষিকীতে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি, পরিচালক সমিতি, প্রযোজক পরিবেশক সমিতির সদস্যরা নায়করাজ রাজ্জাকের স্মরণে দোয়া ও তার কবর জিয়ারত করবে।

নায়করাজের ছোট ছেলে নায়ক সম্রাট বলেন, বাবার মৃত্যুবার্ষিকী স্মরণে আজ (বুধবার) জোহরের নামাজের পর পরিবারের সকলে মিলে আমাদের বাসাতেই দোয়া-মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছে।

পাশাপাশি তিনশ ফিটের রাস্তা সংলগ্ন আমাদের একটি এতিমখানা আছে। সেখানে কোরআন খতমসহ এতিম শিশুদের খাওয়াবো। বাবার জন্য সবার কাছে দোয়া চেয়েছেন সম্রাট।

নায়করাজ রাজ্জাকের জন্ম ১৯৪২ সালে ২৩ জানুয়ারি কলকাতায়। ১৯৬৪ সালে ঢাকায় আসেন তিনি। এরপর জড়িয়ে পড়েন চলচ্চিত্রে। ১৯৬৭ সালে মুক্তি পায় নায়ক হিসেবে তার প্রথম ছায়াছবি ‘বেহুলা’।

সেই থেকে শুরু। অভিনয়ের পাশাপাশি ছবি পরিচালনার কাজও করেছেন রাজ্জাক। ১৬টির মতো ছায়াছবি পরিচালনা করেছেন তিনি।

নায়করাজ একাধারে ছিলেন অভিনেতা, পরিচালক ও প্রযোজক। দুই বাংলাতেই তিনি পেয়েছিলেন জনপ্রিয়তা৷ বাংলা চলচ্চিত্র জগতে দীর্ঘ সাড়ে ছয় দশক এই জনপ্রিয় অভিনেতা দাপটের সাথে কাজ করেছেন।

প্রখ্যাত সাংবাদিক আহমদ জামান চৌধুরী তার কাজের প্রতি সম্মান জানিয়ে তাকে নায়করাজ উপাধি দেন। এরপর এই উপাধির স্বীকৃতি মিলে যায় সবখানে। দল মত নির্বিশেষে তিনি ছিলেন সবার প্রিয় নায়করাজ।

রাজ্জাক অভিনীত উল্লেখযোগ্য ছবির মধ্যে রয়েছে- স্লোগান, আমার জন্মভূমি, অতিথি, কে তুমি, স্বপ্ন দিয়ে ঘেরা, প্রিয়তমা, পলাতক, ঝড়ের পাখি, খেলাঘর, চোখের জলে, আলোর মিছিল, অবাক পৃথিবী, ভাইবোন, বাঁদী থেকে বেগম, সাধু শয়তান, অনেক প্রেম অনেক জ্বালা, মায়ার বাঁধন, গুণ্ডা, আগুন, মতিমহল, অমর প্রেম, যাদুর বাঁশী, অগ্নিশিখা, বন্ধু, কাপুরুষ, অশিক্ষিত, সখি তুমি কার, নাগিন, আনারকলি, লাইলী মজনু, লালু ভুলু, স্বাক্ষর, দেবর ভাবী, রাম রহিম জন, আদরের বোন, দরবার, সতীনের সংসার।

ব্যক্তিজীবনে রাজলক্ষীর সঙ্গে সুখের দাম্পত্যে রাজ্জাক ছিলেন তিন পুত্র ও দুই কন্যার জনক। তার দুই পুত্র বাপ্পারাজ ও সম্রাটও বাবার মতোই নায়ক হিসেবে প্রতিষ্ঠিত৷

শেষ জীবনে নানা অসুখে আক্রান্ত ছিলেন নায়করাজ। মৃত্যুর পর তাকে বনানী কবরস্থানে সমাহিত করা হয়।

বিজনেস আওয়ার/২১ আগস্ট, ২০১৯/এ

পাঠকের মতামত: