ঢাকা, রবিবার, ২০ অক্টোবর ২০১৯, ৫ কার্তিক ১৪২৬
sristymultimedia.com

প্রচ্ছদ » জাতীয় » বিস্তারিত


ss-steel-businesshour24

Runner-businesshour24

মতিঝিল থানার পাশেই ৪ ক্যাসিনো!

আপডেট : 2019-09-20 17:27:14
মতিঝিল থানার পাশেই ৪ ক্যাসিনো!

বিজনেস আওয়ার প্রতিবেদকঃ রাজধানীর ফকিরাপুলের কালভার্ট রোডে মতিঝিল থানা। আর এই থানার ৩০০ গজের মধ্যেই রয়েছে চারটি ক্যাসিনো। স্থানীয় বাসিন্দা থেকে শুরু করে আশপাশের ব্যবসায়ীদের সবাই জানতো এই ক্যাসিনোগুলোতে প্রতিদিন বসে জুয়ার আসর।

মতিঝিল থানার আশেপাশে থাকা এসব ক্লাব হচ্ছে- ফকিরাপুল ইয়ংমেন্স ক্লাব, ঢাকা ওয়ান্ডারার্স ক্লাব, আরামবাগ ক্রীড়া সংঘ ও দিলকুশা স্পোর্টিং ক্লাব।

জানা গেছে ক্যাসিনোগুলো চালাতো যুবলীগের কয়েকজন প্রভাবশালী নেতা। তাদের মাথার ওপরে দলটির কেন্দ্রীয় নেতা, মন্ত্রী, এমপিদের আশীর্বাদ থাকায় তারা এতটাই প্রভাবশালী ও ক্ষমতাধর ছিল যে এদের ব্যাপারে অভিযোগ করার সাহস পেতেন না কেউ। উল্টো এলাকার ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে নিয়ম করে মাসোহারা নিয়ে যেত যুবলীগের নেতা পরিচয়ধারী এসব ক্যাসিনোর মালিকদের পোষা ক্যাডাররা। চার চারটি ক্যাসিনো নাকের ডগায় চললেও এবং দীর্ঘদিন ধরে এলাকাজুড়ে চাঁদাবাজি চললেও কোনও ধরনের হাঁচি-কাশি দেয়নি মতিঝিল থানা পুলিশ। বরং জুয়ার টাকার বখরা পকেটে পুরে চোখ বন্ধ করে থাকতো তারা এমন অভিযোগ রয়েছে এই থানার পুলিশ কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে।

খোঁজ নিয়ে দেখা গেছে, বাইরে ক্রীড়াঙ্গনের মূলধারার ক্লাব হিসেবে পরিচিতি থাকলেও গত পাঁচ-সাত বছর ধরে এসব ক্লাবের মূল কর্মকাণ্ডই ছিল ক্যাসিনো পরিচালনা ও জুয়া খেলা পরিচালনা। পাশাপাশি বিক্রি হতো বিভিন্ন ধরনের মাদকদ্রব্য।

এরমধ্যে দুটি ক্লাবে ২৪ ঘণ্টাই ক্যাসিনো চলতো বলে জানিয়েছে স্থানীয়রা। এর মধ্যে গত বুধবার ফকিরাপুল ইয়ংমেন্স ক্লাব ও ঢাকা ওয়ান্ডারার্স ক্লাবে অভিযান চালায় র‌্যাব। আর এর মধ্য দিয়েই এসব ক্লাবের ভেতরে দেশে নিষিদ্ধ ক্যাসিনো ব্যবসা পরিচালনার খবর দেশবাসী জানতে পারে।

বিজনেস আওয়ার/২০ সেপ্টেম্বর,২০১৯/আই

পাঠকের মতামত: