ঢাকা, বুধবার, ২৩ অক্টোবর ২০১৯, ৮ কার্তিক ১৪২৬
sristymultimedia.com

প্রচ্ছদ » রাজনীতি » বিস্তারিত


ss-steel-businesshour24

Runner-businesshour24

শুদ্ধি অভিযানে বাড়ছে সরকারের ইমেজ

আপডেট : 2019-09-24 10:38:49
শুদ্ধি অভিযানে বাড়ছে সরকারের ইমেজ

বিজনেস আওয়ার প্রতিবেদক : চাঁদাবাজি, দুর্নীতি ও ক্যাসিনো পরিচালনার বিরুদ্ধে সরকারের চলমান অভিযানকে দেশের মানুষ সমর্থন দিচ্ছে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের নেতারা। এতে জনগণের কাছে আওয়ামী লীগের ইমেজ আরও বেড়েছে বলে মনে করছেন তারা।

সম্প্রতি আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সভায় দলের বিভিন্ন পর্যায়ের কিছু নেতাকর্মীর চাঁদাবাজি, টেন্ডারবাজি, দুর্নীতিসহ অপকর্মের বিষয়ে আলোচনায় ব্যাপক ক্ষোভ প্রকাশ করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

অপকর্মের সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার সিদ্ধান্ত হয় ওই সভায়। এরপরই গত ১৮ সেপ্টেম্বর থেকে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাবাহিনী বিভিন্ন ক্লাবে পরিচালিত ক্যাসিনোসহ অপকর্মের হোতাদের অফিস ও বাসায় অভিযান শুরু করে।

এর মধ্য দিয়ে গোপনে পরিচালিত ক্যাসিনোর সন্ধান বেরিয়ে আসছে একের পর এক অজানা তথ্য। ইতোমধ্যেই অপকর্মের সঙ্গে জড়িত কয়েকজন প্রভাশালী নেতাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। নজরদারিতে অনেকেই।

আওয়ামী লীগের নীতিনির্ধারণী পর্যায়ের নেতারা বলেন, দলের নাম ভাঙিয়ে কিছু লোকের অপকর্মের কারণে সরকার ও আওয়ামী লীগের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হচ্ছিল। এদের অপকর্মের দায় বিভিন্ন সময় আওয়ামী লীগের উপর এসে পড়ে।

এই অভিযানে কাউকে ছাড়া হচ্ছে না, সে দলের হোক আর দলের ছত্রছায়ায় থেকে করুক। ফলে এই অভিযান জনগণ ইতিবাচক হিসেবে নিয়েছে। এতে জনগণের কাছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, তার সরকার ও আওয়ামী লীগের ভাবমূর্তি বাড়ছে।

ইতোমধ্যে ওবায়দুল কাদের বলেছেন, দুর্নীতি-অনিয়মের বিরুদ্ধে যে শুদ্ধি অভিযান চলছে এই অ্যাকশনের কারণে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জনপ্রিয়তা আরও বেড়ে গেছে। যত বড় নেতাই হোক, যত প্রভাবশালীই হোক কেউ ছাড় পাবে না।

আওয়ামী লীগের এক নেতা বলেন, ক্যাসিনোর বিরুদ্ধে অভিযান, ইতিবাচক। কিন্তু শুধু ক্যাসিনোর নয়, চাঁদাবাজ, টেন্ডারবাজদের বিরুদ্ধেও একই ব্যবস্থা নিতে হবে। পাশাপাশি এদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নিলে সরকার ও আওয়ামী লীগ আরও জনসমর্থন পাবে।

আওয়ামী লীগের একাধিক সূত্র জানায়, আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিউইয়র্ক যাওয়ার আগে আওয়ামী লীগের নীতিনির্ধারণী পর্যায়ের কয়েকজন নেতা-মন্ত্রীর সঙ্গে বিষয়টি নিয়ে পুনরায় কথা বলেছেন এবং প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দিয়ে গেছেন।

তিনি নির্দেশ দিয়েছেন আওয়ামী লীগের নাম ব্যবহার করে যারাই অপকর্ম করছে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিতে হবে। অপরাধের সঙ্গে জড়িতদের রক্ষার জন্য কোনো রকম তদবির যেন কেউ না করে। যে তদবির করবে তার বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ বিষয়ে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য কাজী জাফরউল্লাহ বলেন, অপকর্মে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। এটা জনগণ খুব ইতিবাচক হিসেবে নিয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে এই পদক্ষেপ নেওয়ায় সরকার ও আওয়ামী লীগের ইমেজ আরও বেড়েছে।

এ বিষয়ে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর আরেক সদস্য অ্যাডভোকেট আব্দুল মতিন খসরু বলেন, যে কাজটা শুরু করা হয়েছে এটা সরকারের দায়িত্ব। এতে সরকারের উপর মানুষ খুশি হয়েছে।

শুধু অপকর্মের সঙ্গে সরাসরি জড়িত তারাই নয়, যারা এই অপকর্মের সঙ্গে জড়িত তাদের মদদদাতা কারা তাদেরও খুঁজে বের করে আইনের আওতায় নিয়ে আসতে হবে। এতে সরকার ও আওয়ামী লীগের ইমেজ বাড়বে।

বিজনেস আওয়ার/২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৯/এ

পাঠকের মতামত: