ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৯, ২ কার্তিক ১৪২৬
sristymultimedia.com

প্রচ্ছদ » আন্তর্জাতিক » বিস্তারিত


ss-steel-businesshour24

Runner-businesshour24

মিয়ানমার রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে আগ্রহী নয়ঃ মাহাথির

আপডেট : 2019-09-25 17:54:53
মিয়ানমার রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে আগ্রহী নয়ঃ মাহাথির

বিজনেস আওয়ার প্রতিবেদকঃ রোহিঙ্গা নিধনের ঘটনায় মিয়ানমারের কঠোর সমালোচনা করে মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী ড. মাহাথির মোহাম্মদ বলেন, মিয়ানমার এই সংকট সমাধানে আগ্রহী নয়, তাই এখন আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের। যা করার আমাদের করতে হবে।

মঙ্গলবার (২৪ সেপ্টেম্বর) জাতিসংঘ সদর দফতরে ওআইসি এবং জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী মিশন কর্তৃক আয়োজিত এক বৈঠকে তিনি এই সমালোচনা করেন।

মাহাথির বলেন, ‘এটা খুব স্পষ্ট যে এই সঙ্কট সমাধানে মিয়ানমার সরকার কোনো ধরনের পদক্ষেপ নেয়ার ব্যাপারে অনাগ্রহী। তাই এই সঙ্কটের নিরসন এখন আমাদেরকেই করতে হবে কেননা এর দায় আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের ওপর বর্তায়। মানবসৃষ্ট দুর্যোগ মোকাবিলার উদ্দেশ্যেই জাতিসংঘের প্রতিষ্ঠা। এখন সংস্থাটির উচিত রোহিঙ্গা সংকট নিরসনে ভূমিকা রাখা।’

তিনি বলেন, মিয়ানমার থেকে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের বেশিরভাগই বাংলাদেশের কক্সবাজারে আশ্রয় নিয়েছে। ড. মাহাথির বলেন, ১২ লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা শরণার্থীকে আশ্রয় দেওয়ায় আমরা বাংলাদেশকে সাধুবাদ জানাই। মালয়েশিয়াও যতটুকু সম্ভব করার চেষ্টা করেছে।
মাহাথির জানান, রোহিঙ্গাদের জন্য মানবিক সহায়তার বাইরেও কক্সবাজারে একটি ফিল্ড হসপিটাল পরিচালনা করছে মালয়েশিয়া। ওই হসপিটালের পাশেই এক লাখ নিবন্ধিত শরণার্থী রয়েছে। এছাড়া আরও বহু অবনিবন্ধিত শরণার্থীও রয়েছে সেখানে। তারপরও বাংলাদেশের জন্য এটি অপ্রতুল। রোহিঙ্গাদের ভালো জীবনযাপনের জন্য বাংলাদেশ প্রচুর ত্যাগ স্বীকার করেছে। আমরাও আমাদের সামর্থ্য অনুযায়ী রোহিঙ্গাদের সাহায্য করবো। আশা করি অন্য দেশগুলোও এগিয়ে আসবে। এই সংকটের অবসান ঘটনো দরকার এবং এটি এখনই করা দরকার।

তিনি বলেন, শরণার্থীরা যত দিন শিবিরে থাকবে, ততই তারা আরও হতাশ ও মরিয়া হয়ে উঠবে। এ ধরনের ক্ষেত্রে যা হয়, সেটি হচ্ছে শরণার্থীরা অন্য ধরনের শোষণের ঝুঁকির মধ্যে পড়ে যায়। তারা মানবপাচার এবং যৌন দাসত্বের মতো ঘটনার লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত হয়। তারা কেবল সামনে একটি হিমশীতল ভবিষ্যৎ দেখতে পায়।

মাহাথির মোহাম্মদ বলেন, মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের পরিস্থিতি ভালো ছিল না। কারণ রাখাইনের বহু রোহিঙ্গা অভ্যন্তরীণভাবেই বাস্তুচ্যুত হয়ে পড়েছিল। মিয়ানমারকে এর প্রমাণ দেওয়া উচিত, সংকট নিরসনে তারা সিরিয়াস ছিল। এক্ষেত্রে তাদের উচিত প্রত্যাবাসনকে প্রধান অগ্রাধিকার দেওয়া। রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে ফিরতে না চাওয়াটাই স্বাভাবিক বলে মন্তব্য করেন মাহাথির।

তিনি বলেন, এর কারণগুলো স্পষ্ট। কেউ যদি তার সুরক্ষার নিশ্চয়তা বোধ না করে তবে সে ফিরবে না। এজন্য রোহিঙ্গাদের নিরাপদ, স্বতঃস্ফূর্ত ও মর্যাদাপূর্ণ প্রত্যাবাসনের ওপর মালয়েশিয়া জোর দিচ্ছে। এটি শুধু রোহিঙ্গাদের পূর্ণ নাগরিকত্ব দেওয়ার মাধ্যমেই নিশ্চিত করা সম্ভব। জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের বাইরে অন্যদেরও এ সংকট সমাধান এবং অপরাধীদের বিচারের জন্য ভূমিকা নিতে হবে।

বিজনেস আওয়ার/২৫ সেপ্টেম্বর,২০১৯/ আরআই

পাঠকের মতামত: