বিজনেস আওয়ার (টাঙ্গাইল প্রতিনিধি): ধর্ষণ মামলা তুলে নেয়ার জন্য ধর্ষণকারীর হত্যা ও লাশ গুম করার হুমকি ধামকিতে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন ধর্ষিতা। পুলিশ ধর্ষণকারীর চাচা ও চাচাতো ভাইকে গ্রেফতার করায় ধর্ষণকারী আরো ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেছে। এতে করে যে কোন সময় ধর্ষণকারী ঐ যুবক ধর্ষিতার জীবন নাশ করতে পারে এমন আশংকায় ভুগছেন ধর্ষিতার পরিবার। দ্রুত ধর্ষণকারীকে গ্রেপ্তারের আবেদন করেছেন তারা।

জানা যায়, ধর্ষিতা নবগৃহবধুর তার বাবার বাড়ি টাঙ্গাইল সদর উপজেলার চর পাকুল্যা গ্রামে বেড়াতে আসে। ঐ গ্রামের ময়নাল মন্ডলের ছেলে বাবু মন্ডল (২৫) বিয়ের আগে থেকেই তাকে (ধর্ষিতা) উত্যাক্ত করতো। গত ৩ জুন রাতে খাবার খেয়ে নববধু তার ছোট বোনকে নিয়ে ঘুমিয়ে যায়। রাতে বাবু মন্ডল ঘরের টিনের বেড়ার বাঁধন কেটে দরজার শিকল খুলে ঘরে প্রবেশ করে। এরপর ঘুমিয়ে থাকা নববধুর মুখ ও দুই হাত বেঁধে ধর্ষণ করে। এ সময় ধস্তাধস্তিতে মুখের বাধন খুলে ধর্ষণের সময় ধর্ষিতার ডাক চিৎকার করতে থাকলে আশেপাশের মানুষ এগিয়ে আসে। এসময় বাবু মন্ডল পালিয়ে যায়।

পরে ধর্ষিতা বাদী হয়ে টাঙ্গাইল মডেল থানায় বাবু মন্ডলসহ তিনজনকে আসামী করে মামলা দায়ের করে। পরে মামলার তদন্তকারী কর্মকার্তা টাঙ্গাইল মডেল থানার সাব-ইন্সপেক্টর মোঃ ওমর ফারুক তদন্ত করে ধর্ষণ কাজে সহায়তাকারী বাবু মন্ডলের চাচা জয়নাল ও চাচাতো ভাই মাসুদকে গ্রেপ্তার করে জেল হাজতে প্রেরণ করেছে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকার্তা ওমর ফারুক জানান, মামলার মুল আসামী বাবু মন্ডল গা ঢাকা দিয়েছে। তাকে গ্রেপ্তারের জন্য চেষ্টা চলছে। আর মামলার অপর আসামী জয়নাল জামিনে ছাড়া পেয়েছে। যদি মামলা তুলে নেয়ার জন্য আসামীরা বাদীকে হুমকি ধামকি করে তবে তাদের জিডি করতে বলেছি। এছাড়া জামিনে ছাড়া পাওয়া আসামীর জামিন বালিতের জন্য আদালতে দরখাস্ত দিব।

বিজনেস আওয়ার/১১ জুলাই,২০১৯/আরআই