আন্তর্জাতিক ডেস্ক : মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যের রোহিঙ্গাদের ওপর গণহত্যা ও নির্যাতন চালানোর অভিযোগে আন্তর্জাতিক বিচারিক আদালতে দায়ের করা গাম্বিয়ার মামলায় সরকারের পক্ষে ব্যক্তিগতভাবে লড়বেন মিয়ানমারের নেতা অং সান সু চি। বুধবার সু চির অফিস থেকে এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, সু চি নেদারল্যান্ডসের আন্তর্জাতিক বিচারিক আদালতে একটি আইনি দলের নেতৃত্ব দেবেন। মিয়ানমারের বিরুদ্ধে রোহিঙ্গা গণহত্যা ও ধর্ষণ চালানোর অভিযোগ এনে বিশ্ব আদালতে মামলা করেছে পশ্চিম আফ্রিকার দেশ গাম্বিয়া। ১০ ডিসেম্বর শুরু হওয়া মামলাটির শুনানি চলবে ১২ ডিসেম্বর পর্যন্ত।

সোমবার (১৮ নভেম্বর) আন্তর্জাতিক বিচারিক আদালতের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, প্রথম ধাপে ১০ ডিসেম্বর শুনানি করবে গাম্বিয়া। আর ১১ ডিসেম্বর শুনানি করবে মিয়ানমার। দ্বিতীয় ধাপে দুই দেশ একসঙ্গে শুনানি করবে। আর এ শুনানি সরাসরি দেখানো হবে।

উল্লেখ্য, রোহিঙ্গা জাতিগোষ্ঠীর ওপর গণহত্যা চালানোর অভিযোগে জাতিসংঘের সর্বোচ্চ বিচারিক সংস্থা ইন্টারন্যাশনাল কোর্ট অব জাস্টিস বা আন্তর্জাতিক ন্যায়বিচার আদালতে মিয়ানমারের বিরুদ্ধ মামলা করেছে গাম্বিয়া। আন্তর্জাতিক বিচারিক আদালতে ৪৬ পৃষ্ঠার মামলা আবেদনপত্র জমা দিয়েছে দেশটি।

মামলার অভিযোগে বলা হয়েছে, মিয়ানমার গণহত্যা চালিয়ে একটি জনগোষ্ঠীকে নিশ্চিহ্ন করার চেষ্টা করেছে। যদি আন্তর্জাতিক বিচারিক আদালত এ আবেদন গ্রহণ করে, তবে হেগে অবস্থিত আদালতটি প্রথমবারের মতো রোহিঙ্গাদের ওপর সংঘটিত অপরাধের তদন্ত করবে। ফলে অন্য ট্রাইব্যুনালগুলোর ওপর তাদের নির্ভর করতে হবে না।

বিজনেস আওয়ার/২১ নভেম্বর, ২০১৯/এ