ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০২৪, ৫ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বাক-স্বাধীনতার নামে মুসলিম মূল্যবোধে আঘাত মেনে নেওয়া হবে না

  • পোস্ট হয়েছে : ০৫:৫২ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২৩
  • 10

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: চিন্তার স্বাধীনতা তথা বাক-স্বাধীনতার নাম করে বিশ্বের ২০০ কোটি মুসলমানের মূল্যবোধের ওপর আঘাত করা হলে তা মেনে নেওয়া হবে না বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগান।

যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে অবস্থানরত এরদোগান তুর্কি-আমেরিকান ন্যাশনাল স্টিয়ারিং কমিটি আয়োজিত একটি নৈশভোজে রোববার এমন মন্তব্য করেন।

তুরস্কের বার্তা সংস্থা আনাদুলু জানিয়েছে, প্রেসিডেন্ট এরদোগান বলেছেন, এসব ঘটনা আমাদের কাছে উস্কানি। এসব ঘটনা মানুষের মধ্যে উত্তেজনা বাড়িয়ে দেয়।

প্রসঙ্গত, সম্প্রতিক সময়গুলোতে সুইডেন ও ডেনমার্কে বেশ কয়েক দফা পবিত্র কুরআনের কপি পোড়ানোর ঘটনা ঘটেছে। এমনকি দেশ দুটির প্রশাসন এর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নিয়ে উল্টো এমন ন্যাক্কারজনক কাজ করার অনুমতি দিয়েছে। যেখানে বাক-স্বাধীনতার অজুহাত দেখানো হয়েছে।

বিষয়টি নিয়ে বিশ্বব্যাপী সমালোচনার ঝড় উঠলেও নর্ডিক রাষ্ট্র দুটির সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়, বাক-স্বাধীনতার অংশ হিসেবে কুরআন পোড়ানোর অনুমতি দেওয়া হয়েছিল। তবে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যাওয়ায় বিষয়টিকে গুরুত্বসহকারে তদন্ত করা হচ্ছে বলেও জানিয়েছে সুইডেন ও ডেনমার্ক।

তবে তুর্কি প্রেসিডেন্ট এরদোগান এদিন কোনো দেশের নাম না নিয়ে বলেন, জাতিসংঘের মানবাধিকার কাউন্সিল এবং জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের প্রস্তাবগুলোকে তুরস্ক সম্মান করে। পবিত্র গ্রন্থকে (কুরআন) লক্ষ্য করে হিংসাত্মক কর্মকাণ্ডকে আন্তর্জাতিক আইনের লঙ্ঘন হিসেবে দেখি আমরা। আগামীতেও আমরা বিষয়টাকে এভাবেই দেখব।

এরদোগান সাম্প্রতিক সময়ে কুরআনের ওপর সেই নৃশংস হামলার কথা উল্লেখ করে বলেন, ইসলামের প্রতি বিদ্বেষ প্রতিহত করা না গেলে অপরাধীরা আরও বেপরোয়া হয়ে উঠবে। তুরস্ক হিসেবে আমরা সেই ক্রমবর্ধমান হুমকির ব্যাপারে প্রতিক্রিয়া জানাচ্ছি।

বিজনেস আওয়ার/১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২৩/এএইচএ

ফেসবুকের মাধ্যমে আপনার মতামত জানান:
ট্যাগ :

আপনার মতামত লিখুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার মেইলে তথ্য জমা করুন

বাক-স্বাধীনতার নামে মুসলিম মূল্যবোধে আঘাত মেনে নেওয়া হবে না

পোস্ট হয়েছে : ০৫:৫২ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২৩

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: চিন্তার স্বাধীনতা তথা বাক-স্বাধীনতার নাম করে বিশ্বের ২০০ কোটি মুসলমানের মূল্যবোধের ওপর আঘাত করা হলে তা মেনে নেওয়া হবে না বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগান।

যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে অবস্থানরত এরদোগান তুর্কি-আমেরিকান ন্যাশনাল স্টিয়ারিং কমিটি আয়োজিত একটি নৈশভোজে রোববার এমন মন্তব্য করেন।

তুরস্কের বার্তা সংস্থা আনাদুলু জানিয়েছে, প্রেসিডেন্ট এরদোগান বলেছেন, এসব ঘটনা আমাদের কাছে উস্কানি। এসব ঘটনা মানুষের মধ্যে উত্তেজনা বাড়িয়ে দেয়।

প্রসঙ্গত, সম্প্রতিক সময়গুলোতে সুইডেন ও ডেনমার্কে বেশ কয়েক দফা পবিত্র কুরআনের কপি পোড়ানোর ঘটনা ঘটেছে। এমনকি দেশ দুটির প্রশাসন এর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নিয়ে উল্টো এমন ন্যাক্কারজনক কাজ করার অনুমতি দিয়েছে। যেখানে বাক-স্বাধীনতার অজুহাত দেখানো হয়েছে।

বিষয়টি নিয়ে বিশ্বব্যাপী সমালোচনার ঝড় উঠলেও নর্ডিক রাষ্ট্র দুটির সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়, বাক-স্বাধীনতার অংশ হিসেবে কুরআন পোড়ানোর অনুমতি দেওয়া হয়েছিল। তবে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যাওয়ায় বিষয়টিকে গুরুত্বসহকারে তদন্ত করা হচ্ছে বলেও জানিয়েছে সুইডেন ও ডেনমার্ক।

তবে তুর্কি প্রেসিডেন্ট এরদোগান এদিন কোনো দেশের নাম না নিয়ে বলেন, জাতিসংঘের মানবাধিকার কাউন্সিল এবং জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের প্রস্তাবগুলোকে তুরস্ক সম্মান করে। পবিত্র গ্রন্থকে (কুরআন) লক্ষ্য করে হিংসাত্মক কর্মকাণ্ডকে আন্তর্জাতিক আইনের লঙ্ঘন হিসেবে দেখি আমরা। আগামীতেও আমরা বিষয়টাকে এভাবেই দেখব।

এরদোগান সাম্প্রতিক সময়ে কুরআনের ওপর সেই নৃশংস হামলার কথা উল্লেখ করে বলেন, ইসলামের প্রতি বিদ্বেষ প্রতিহত করা না গেলে অপরাধীরা আরও বেপরোয়া হয়ে উঠবে। তুরস্ক হিসেবে আমরা সেই ক্রমবর্ধমান হুমকির ব্যাপারে প্রতিক্রিয়া জানাচ্ছি।

বিজনেস আওয়ার/১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২৩/এএইচএ

ফেসবুকের মাধ্যমে আপনার মতামত জানান: