ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মাসের শুরুতেই রিজার্ভে পতন

  • পোস্ট হয়েছে : ০৯:১৬ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৬ নভেম্বর ২০২৩
  • 11

বিজনেস আওয়ার ডেস্ক: চলতি মাসের শুরুতে দেশের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ ছিলো ২ হাজার ৬৭ কোটি ডলার। রিজার্ভ থেকে ডলার বিক্রি অব্যাহত রেখেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এর ফলে বর্তমানে তা কমে দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ৯৬০ কোটি ডলার। এখন নিট বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ ১৯ দশমিক ৬০ বিলিয়ন ডলার (বিপিএম৬) বা এক হাজার ৯৬০ কোটি ৩৭ লাখ মার্কিন ডলার।

এ সময়ে বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ থেকে গঠিত তহবিলসহ মোট রিজার্ভের পরিমাণ ২৫ দশমিক ২৬ বিলিয়ন ডলার বা দুই হাজার ৫২৬ কোটি ২ লাখ মার্কিন ডলার।

বৃহস্পতিবার (১৬ নভেম্বর) বাংলাদেশ ব্যাংকের উইকলি সিলেক্টেড ইকোনমিক ইন্ডিকেটর্সে এ তথ্য তুলে ধরা হয়েছে। এক সপ্তাহে রিজার্ভ কমেছে ১১৮ কোটি ডলার।

বাংলাদেশ সাধারণত রিজার্ভ থেকে গঠিত তহবিলসহ রিজার্ভ দেখাত। কিন্তু আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) কাছ থেকে ৪৭০ কোটি মার্কিন ডলার ঋণ নেওয়ার শর্ত অনুযায়ী বিশ্বজুড়ে প্রচলিত ও বহুল ব্যবহৃত আইএমএফের ব্যালেন্স অব পেমেন্টস অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট পজিশন ম্যানুয়াল (বিপিএম-৬) অনুযায়ী হিসাব দেখানো শুরু করেছে।

সেই অনুযায়ী চলতি অর্থবছরের শুরু থেকে রিজার্ভ গণনায় বিমানকে দেওয়া ঋণ গ্যারান্টি, পায়রাবন্দর কর্তৃপক্ষকে দেওয়া ঋণ, ইসলামী উন্নয়ন ব্যাংকে আমানত এবং নির্দিষ্ট গ্রেডের নিচে থাকা সিকিউরিটিতে বিনিয়োগ রিজার্ভ থেকে বাদ দেয়। অবশিষ্ট ব্যবহারযোগ্য রিজার্ভকে নিট বলা হচ্ছে। পাশাপাশি মোট রিজার্ভও দেখানো হয়।

বিজনেস আওয়ার/এএইচএ

ফেসবুকের মাধ্যমে আপনার মতামত জানান:
ট্যাগ :

আপনার মতামত লিখুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার মেইলে তথ্য জমা করুন

মাসের শুরুতেই রিজার্ভে পতন

পোস্ট হয়েছে : ০৯:১৬ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৬ নভেম্বর ২০২৩

বিজনেস আওয়ার ডেস্ক: চলতি মাসের শুরুতে দেশের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ ছিলো ২ হাজার ৬৭ কোটি ডলার। রিজার্ভ থেকে ডলার বিক্রি অব্যাহত রেখেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এর ফলে বর্তমানে তা কমে দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ৯৬০ কোটি ডলার। এখন নিট বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ ১৯ দশমিক ৬০ বিলিয়ন ডলার (বিপিএম৬) বা এক হাজার ৯৬০ কোটি ৩৭ লাখ মার্কিন ডলার।

এ সময়ে বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ থেকে গঠিত তহবিলসহ মোট রিজার্ভের পরিমাণ ২৫ দশমিক ২৬ বিলিয়ন ডলার বা দুই হাজার ৫২৬ কোটি ২ লাখ মার্কিন ডলার।

বৃহস্পতিবার (১৬ নভেম্বর) বাংলাদেশ ব্যাংকের উইকলি সিলেক্টেড ইকোনমিক ইন্ডিকেটর্সে এ তথ্য তুলে ধরা হয়েছে। এক সপ্তাহে রিজার্ভ কমেছে ১১৮ কোটি ডলার।

বাংলাদেশ সাধারণত রিজার্ভ থেকে গঠিত তহবিলসহ রিজার্ভ দেখাত। কিন্তু আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) কাছ থেকে ৪৭০ কোটি মার্কিন ডলার ঋণ নেওয়ার শর্ত অনুযায়ী বিশ্বজুড়ে প্রচলিত ও বহুল ব্যবহৃত আইএমএফের ব্যালেন্স অব পেমেন্টস অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট পজিশন ম্যানুয়াল (বিপিএম-৬) অনুযায়ী হিসাব দেখানো শুরু করেছে।

সেই অনুযায়ী চলতি অর্থবছরের শুরু থেকে রিজার্ভ গণনায় বিমানকে দেওয়া ঋণ গ্যারান্টি, পায়রাবন্দর কর্তৃপক্ষকে দেওয়া ঋণ, ইসলামী উন্নয়ন ব্যাংকে আমানত এবং নির্দিষ্ট গ্রেডের নিচে থাকা সিকিউরিটিতে বিনিয়োগ রিজার্ভ থেকে বাদ দেয়। অবশিষ্ট ব্যবহারযোগ্য রিজার্ভকে নিট বলা হচ্ছে। পাশাপাশি মোট রিজার্ভও দেখানো হয়।

বিজনেস আওয়ার/এএইচএ

ফেসবুকের মাধ্যমে আপনার মতামত জানান: