ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০২৪, ৬ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পাপুয়া নিউগিনিতে ভূমিধস: ৬৭০ জনের প্রাণহানির শঙ্কা

  • পোস্ট হয়েছে : ০৬:১০ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৬ মে ২০২৪
  • 69

বিজনেস আওয়ার ডেস্ক: পাপুয়া নিউগিনিতে ভয়াবহ ভূমিধসের ঘটনায় অন্তত ৬৭০ জন নিহত হয়েছেন বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। রোববার (২৬ মে) আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থা এ তথ্য জানিয়েছে।

দক্ষিণ প্রশান্ত মহাসাগরীয় দ্বীপরাষ্ট্রে সংস্থাটির মিশন প্রধান সেরহান আক্তোপ্রাক বলেছেন, নতুন আনুমানিক নিহতের সংখ্যা নির্ধারণ করা হয়েছে ইয়াম্বালি গ্রাম ও এনগা প্রদেশের কর্মকর্তাদের তথ্য বিবেচনায় নিয়ে।

বলা হয়েছে, গত শুক্রবারের ভূমিধসের ঘটনায় ১৫০টির বেশি বাড়ি মাটির নিচে চাপা পড়েছে।

এর আগে বলা হয়েছিল ভূমিধসে ৬০টি বাড়ি মাটির নিচে চাপা পড়েছে। কিন্তু বর্তমানের হিসাব অনুযায়ী দেখা যাচ্ছে, ৬৭০ জনের বেশি মানুষ এখনো মাটির নিচে রয়েছেন।

আক্তোপ্রাক বলেছেন, এখনো ভূমিধস হচ্ছে। প্রবাহিত হচ্ছে পানি। এতে সেখানে ঝুঁকি ক্রমেই বাড়ছে।

জানা গেছে, রাজধানী পোর্ট মোর্সবি থেকে প্রায় ৬০০ কিলোমিটার উত্তরের এনগা প্রদেশে এই ঘটনা ঘটেছে। মধ্যরাতে যখন ভূমিধসের ঘটনা ঘটে তখন গ্রামের বেশিরভাগ মানুষই ঘুমিয়ে ছিলেন।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রকাশিত বিভিন্ন ভিডিওতে ভয়াবহ ধ্বংসযজ্ঞের পরিস্থিতি দেখা যাচ্ছে। স্থানীয় বাসিন্দারা বড় বড় পাথর সরানোর চেষ্টা করছেন। অসংখ্য গাছ উপড়ে গেছে।

সূত্র: এএফপি, আল-জাজিরা

বিজনেস আওয়ার/২৬ মে/ হাসান

ফেসবুকের মাধ্যমে আপনার মতামত জানান:
ট্যাগ :

আপনার মতামত লিখুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার মেইলে তথ্য জমা করুন

পাপুয়া নিউগিনিতে ভূমিধস: ৬৭০ জনের প্রাণহানির শঙ্কা

পোস্ট হয়েছে : ০৬:১০ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৬ মে ২০২৪

বিজনেস আওয়ার ডেস্ক: পাপুয়া নিউগিনিতে ভয়াবহ ভূমিধসের ঘটনায় অন্তত ৬৭০ জন নিহত হয়েছেন বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। রোববার (২৬ মে) আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থা এ তথ্য জানিয়েছে।

দক্ষিণ প্রশান্ত মহাসাগরীয় দ্বীপরাষ্ট্রে সংস্থাটির মিশন প্রধান সেরহান আক্তোপ্রাক বলেছেন, নতুন আনুমানিক নিহতের সংখ্যা নির্ধারণ করা হয়েছে ইয়াম্বালি গ্রাম ও এনগা প্রদেশের কর্মকর্তাদের তথ্য বিবেচনায় নিয়ে।

বলা হয়েছে, গত শুক্রবারের ভূমিধসের ঘটনায় ১৫০টির বেশি বাড়ি মাটির নিচে চাপা পড়েছে।

এর আগে বলা হয়েছিল ভূমিধসে ৬০টি বাড়ি মাটির নিচে চাপা পড়েছে। কিন্তু বর্তমানের হিসাব অনুযায়ী দেখা যাচ্ছে, ৬৭০ জনের বেশি মানুষ এখনো মাটির নিচে রয়েছেন।

আক্তোপ্রাক বলেছেন, এখনো ভূমিধস হচ্ছে। প্রবাহিত হচ্ছে পানি। এতে সেখানে ঝুঁকি ক্রমেই বাড়ছে।

জানা গেছে, রাজধানী পোর্ট মোর্সবি থেকে প্রায় ৬০০ কিলোমিটার উত্তরের এনগা প্রদেশে এই ঘটনা ঘটেছে। মধ্যরাতে যখন ভূমিধসের ঘটনা ঘটে তখন গ্রামের বেশিরভাগ মানুষই ঘুমিয়ে ছিলেন।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রকাশিত বিভিন্ন ভিডিওতে ভয়াবহ ধ্বংসযজ্ঞের পরিস্থিতি দেখা যাচ্ছে। স্থানীয় বাসিন্দারা বড় বড় পাথর সরানোর চেষ্টা করছেন। অসংখ্য গাছ উপড়ে গেছে।

সূত্র: এএফপি, আল-জাজিরা

বিজনেস আওয়ার/২৬ মে/ হাসান

ফেসবুকের মাধ্যমে আপনার মতামত জানান: