ঢাকা , সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ৩ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ইউনাইটেড এয়ারওয়েজের ৪ বিমান বাজেয়াপ্ত

  • পোস্ট হয়েছে : ১১:০২ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪
  • 87

বিজনেস আওয়ার প্রতিবেদক: হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের ১২টি বিমানকে বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। প্রায় ১০ বছরের বেশি সময় ধরে পরিত্যক্ত অবস্থায় পড়ে থাকায় এই ১২টি এয়ারক্রাফটকে বাজেয়াপ্ত ঘোষণা করা হয়। এরমধ্যে শেয়ারবাজারে তালিকাভক্ত চারটি বিমান রয়েছে।

সম্প্রতি বাংলাদেশের বেসামরিক বিমান চলাচল (বেবিচক) কর্তৃপক্ষের এরোড্রামস অ্যান্ড ফ্যাসিলিটেশন শাখার সদস্য (পরিচালনা ও পরিকল্পনা) দপ্তরের জারি করা এক বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানানো হয়েছে।

বাজেয়াপ্ত হওয়া এয়ারলাইন্সগুলোর মধ্যে ইউনাইটেড এয়ারওয়েজের ৪টি এমডি-৮৩, ১টি এ-৩১০-৩২৫, ১টি এটিআর ৭২-২০২, ১টি এটিআর ৭২-১২, একটি ড্যাশ-৮, রিজেন্ট এয়ারওয়েজের ২টি ড্যাশ-৮, অ্যাঞ্জেল এয়ারওয়েজ লিমিটেডের একটি এএন-২, জিএমজি এয়ারওয়েজের ১টি এমডি-৮২ মডেলের এয়ারক্রাফট।

বেবিচকের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, পরিত্যক্ত এসব উড়োজাহাজ সরিয়ে নিতে বেবিচক থেকে কয়েক দফা চিঠি দেওয়া হলেও সংস্থাগুলো থেকে কোনো সাড়া মেলেনি। তাই এগুলো বাজেয়াপ্ত করা হলো।

বেবিচক সূত্রে জানা গেছে, উড়োজাহাজগুলো নিলামের বিক্রির প্রস্তুতি চলছে। নিলামে বিক্রির গ্রাহক না পেলে এগুলো কেজি দরে বিক্রি করা হতে পারে।

বিজনেস আওয়ার/৩০ মে/এ এইচ

ফেসবুকের মাধ্যমে আপনার মতামত জানান:
ট্যাগ :

আপনার মতামত লিখুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার মেইলে তথ্য জমা করুন

ইউনাইটেড এয়ারওয়েজের ৪ বিমান বাজেয়াপ্ত

পোস্ট হয়েছে : ১১:০২ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪

বিজনেস আওয়ার প্রতিবেদক: হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের ১২টি বিমানকে বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। প্রায় ১০ বছরের বেশি সময় ধরে পরিত্যক্ত অবস্থায় পড়ে থাকায় এই ১২টি এয়ারক্রাফটকে বাজেয়াপ্ত ঘোষণা করা হয়। এরমধ্যে শেয়ারবাজারে তালিকাভক্ত চারটি বিমান রয়েছে।

সম্প্রতি বাংলাদেশের বেসামরিক বিমান চলাচল (বেবিচক) কর্তৃপক্ষের এরোড্রামস অ্যান্ড ফ্যাসিলিটেশন শাখার সদস্য (পরিচালনা ও পরিকল্পনা) দপ্তরের জারি করা এক বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানানো হয়েছে।

বাজেয়াপ্ত হওয়া এয়ারলাইন্সগুলোর মধ্যে ইউনাইটেড এয়ারওয়েজের ৪টি এমডি-৮৩, ১টি এ-৩১০-৩২৫, ১টি এটিআর ৭২-২০২, ১টি এটিআর ৭২-১২, একটি ড্যাশ-৮, রিজেন্ট এয়ারওয়েজের ২টি ড্যাশ-৮, অ্যাঞ্জেল এয়ারওয়েজ লিমিটেডের একটি এএন-২, জিএমজি এয়ারওয়েজের ১টি এমডি-৮২ মডেলের এয়ারক্রাফট।

বেবিচকের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, পরিত্যক্ত এসব উড়োজাহাজ সরিয়ে নিতে বেবিচক থেকে কয়েক দফা চিঠি দেওয়া হলেও সংস্থাগুলো থেকে কোনো সাড়া মেলেনি। তাই এগুলো বাজেয়াপ্ত করা হলো।

বেবিচক সূত্রে জানা গেছে, উড়োজাহাজগুলো নিলামের বিক্রির প্রস্তুতি চলছে। নিলামে বিক্রির গ্রাহক না পেলে এগুলো কেজি দরে বিক্রি করা হতে পারে।

বিজনেস আওয়ার/৩০ মে/এ এইচ

ফেসবুকের মাধ্যমে আপনার মতামত জানান: