ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ২ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

খোজ মেজাজে ২১ কোম্পানির বিনিয়োগকারীরা

  • পোস্ট হয়েছে : ০৯:০৫ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪
  • 72

বিজনেস আওয়ার প্রতিবেদক: দীর্ঘদিন যাবত দেশের শেয়ারবাজারে চলছে পতনের মাতম। ধারাবাহিক পতনের মাতমে চলতি বছরের প্রায় সাড়ে ৫ মাসে (০১ জানুয়ারি-১৩ জুন) বিনিয়োগকারীরা মূলধন হারিয়েছে ১ লাখ ৪৭ হাজার ২৫৬ কোটি টাকা। আর শেয়ারবাজারের সূচক উধাও হয়ে গেছে ১ হাজার ১২৯ পয়েন্ট।

তথ্য বিশ্লেষণে দেখা যায়, ০১ জানুয়ারি প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) উদ্বোধনী মূলধন ছিল ৭ লাখ ৮০ হাজার ৮৪৯ কোটি টাকা। আর সর্বশেষ ১৩ জুন ডিএসইর মূলধন কমে দাঁড়িয়েছে ৬ লাখ ৩৩ হাজার ৫৯৩ কোটি টাকা। এই সাড়ে ৫ মাসে ডিএসইর মূলধন তথা বিনিয়োগকারীদের মূলধন গায়েব হয়ে গেছে ১ লাখ ৪৭ হাজার ২৫৬ কোটি টাকা।

অন্যদিকে, ০১ জানুয়ারি ডিএসইর উদ্বোধনী সূচক ছিল ৬ হাজার ২৪৬ পয়েন্ট। যা ১৩ জুন কমে দাঁড়িয়েছে ৫ হাজার ১১৭ পয়েন্টে। এই সময়ে ডিএসইর সূচক কমেছে ১ হাজার ১২৯ পয়েন্ট।

আলোচ্য সময়ে তালিকাভুক্ত ৩৪৩টি প্রতিষ্ঠানের দর কমেছে। বিপরীতে মাত্র ৪১টি প্রতিষ্ঠানের দর বেড়েছে। বাকি ৩৫টির দর রয়েছে অপরিবর্তিত।

দর বৃদ্ধির ৪১টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ২১টি প্রতিষ্ঠানের দর বেড়েছে ১৫ শতাংশ থেকে ১৮০ শতাংশ পর্যন্ত। এরমধ্যে আইপিও শেয়ার রয়েছে দুটি। যেগুলো হলো শিকাদর ইন্সুরেন্স ও এশিয়াটিক ল্যাবরেটরিজ।

আলোচ্য সময়ে শিকদার ইন্সুরেন্সের দর বেড়েছে ১৮০ শতাংশ এবং এশিয়াটিক ল্যাবরেটরিজের দর বেড়েছে ১৭৪ শতাংশ।

দর বৃদ্ধির বাকি ৩৯টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ১৯টি প্রতিষ্ঠানের দর বেড়েছে ১৫ শতাংশ থেকে ১২২ শতাংশ। এরমধ্যে ১০০ শতাংশের বেশি দর বেড়েছে লাভেলো আইসক্রীম ও বন্ধ মিথুন নিটিংয়ের।

এরপর রিলায়েন্স ওয়ান মিউচ্যুয়াল ফান্ড, রূপালী লাইফ, সিটি ইন্সুরেন্স, গোল্ডেন জুবিলি মিউচ্যুয়াল ফান্ড, বীচ হ্যাচারি, আলিফ ইন্ডাষ্ট্রিজ, খান ব্রাদার্স, কোহিনুর কেমিক্যাল, ফাস্ট প্রাইম মিউচ্যুয়াল ফান্ড, প্রগতি লাইফ ইন্সুরেন্স, ক্রিস্টাল ইন্সুরেন্স, ফাইন ফুড। এই প্রতিষ্ঠনগুলোর দর বেড়েছে ২৫ শতাংশ থেকে ৯৮ শতাংশ পর্যন্ত।

এরপর রয়েছে আইসিবি সোনালী মিউচ্যুয়াল ফান্ড, মিডল্যান্ড ব্যাংক, আলহাজ্ব টেক্সটাইল, ওরিয়ন ইনফিউশন, সেন্ট্রাল ইন্সুরেন্স, ওয়াইম্যাক্স ও মালেক স্পিনিং। যেগুলোর দর বেড়েছে ১৫ শতাংশ থেকে ২৫ শতাংশ পর্যন্ত।

বাজার সংশ্লিষ্টরা বলছেন, পতনের মাতমে শেয়ারবাজারের বিনিয়োগকারীরা প্রায় নিঃস্ব হয়ে পড়েছে। এরমধ্যে কিছু কোম্পানির বিনিয়োগকারীরা লাভে রয়েছে, এটি অবশ্যই খুশির খবর। তবে প্রতিষ্ঠানগুলোর দর বাড়লেও এতে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের সংখ্যা নেহায়েত কম। এমনকি নেই বললেই চলে। লাভবান হয়েছে বড় বিনিয়োগকারীরা।

বিজনেস আওয়ার/১৫ জুন/ এ এইচ

ফেসবুকের মাধ্যমে আপনার মতামত জানান:
ট্যাগ :

আপনার মতামত লিখুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার মেইলে তথ্য জমা করুন

খোজ মেজাজে ২১ কোম্পানির বিনিয়োগকারীরা

পোস্ট হয়েছে : ০৯:০৫ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪

বিজনেস আওয়ার প্রতিবেদক: দীর্ঘদিন যাবত দেশের শেয়ারবাজারে চলছে পতনের মাতম। ধারাবাহিক পতনের মাতমে চলতি বছরের প্রায় সাড়ে ৫ মাসে (০১ জানুয়ারি-১৩ জুন) বিনিয়োগকারীরা মূলধন হারিয়েছে ১ লাখ ৪৭ হাজার ২৫৬ কোটি টাকা। আর শেয়ারবাজারের সূচক উধাও হয়ে গেছে ১ হাজার ১২৯ পয়েন্ট।

তথ্য বিশ্লেষণে দেখা যায়, ০১ জানুয়ারি প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) উদ্বোধনী মূলধন ছিল ৭ লাখ ৮০ হাজার ৮৪৯ কোটি টাকা। আর সর্বশেষ ১৩ জুন ডিএসইর মূলধন কমে দাঁড়িয়েছে ৬ লাখ ৩৩ হাজার ৫৯৩ কোটি টাকা। এই সাড়ে ৫ মাসে ডিএসইর মূলধন তথা বিনিয়োগকারীদের মূলধন গায়েব হয়ে গেছে ১ লাখ ৪৭ হাজার ২৫৬ কোটি টাকা।

অন্যদিকে, ০১ জানুয়ারি ডিএসইর উদ্বোধনী সূচক ছিল ৬ হাজার ২৪৬ পয়েন্ট। যা ১৩ জুন কমে দাঁড়িয়েছে ৫ হাজার ১১৭ পয়েন্টে। এই সময়ে ডিএসইর সূচক কমেছে ১ হাজার ১২৯ পয়েন্ট।

আলোচ্য সময়ে তালিকাভুক্ত ৩৪৩টি প্রতিষ্ঠানের দর কমেছে। বিপরীতে মাত্র ৪১টি প্রতিষ্ঠানের দর বেড়েছে। বাকি ৩৫টির দর রয়েছে অপরিবর্তিত।

দর বৃদ্ধির ৪১টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ২১টি প্রতিষ্ঠানের দর বেড়েছে ১৫ শতাংশ থেকে ১৮০ শতাংশ পর্যন্ত। এরমধ্যে আইপিও শেয়ার রয়েছে দুটি। যেগুলো হলো শিকাদর ইন্সুরেন্স ও এশিয়াটিক ল্যাবরেটরিজ।

আলোচ্য সময়ে শিকদার ইন্সুরেন্সের দর বেড়েছে ১৮০ শতাংশ এবং এশিয়াটিক ল্যাবরেটরিজের দর বেড়েছে ১৭৪ শতাংশ।

দর বৃদ্ধির বাকি ৩৯টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ১৯টি প্রতিষ্ঠানের দর বেড়েছে ১৫ শতাংশ থেকে ১২২ শতাংশ। এরমধ্যে ১০০ শতাংশের বেশি দর বেড়েছে লাভেলো আইসক্রীম ও বন্ধ মিথুন নিটিংয়ের।

এরপর রিলায়েন্স ওয়ান মিউচ্যুয়াল ফান্ড, রূপালী লাইফ, সিটি ইন্সুরেন্স, গোল্ডেন জুবিলি মিউচ্যুয়াল ফান্ড, বীচ হ্যাচারি, আলিফ ইন্ডাষ্ট্রিজ, খান ব্রাদার্স, কোহিনুর কেমিক্যাল, ফাস্ট প্রাইম মিউচ্যুয়াল ফান্ড, প্রগতি লাইফ ইন্সুরেন্স, ক্রিস্টাল ইন্সুরেন্স, ফাইন ফুড। এই প্রতিষ্ঠনগুলোর দর বেড়েছে ২৫ শতাংশ থেকে ৯৮ শতাংশ পর্যন্ত।

এরপর রয়েছে আইসিবি সোনালী মিউচ্যুয়াল ফান্ড, মিডল্যান্ড ব্যাংক, আলহাজ্ব টেক্সটাইল, ওরিয়ন ইনফিউশন, সেন্ট্রাল ইন্সুরেন্স, ওয়াইম্যাক্স ও মালেক স্পিনিং। যেগুলোর দর বেড়েছে ১৫ শতাংশ থেকে ২৫ শতাংশ পর্যন্ত।

বাজার সংশ্লিষ্টরা বলছেন, পতনের মাতমে শেয়ারবাজারের বিনিয়োগকারীরা প্রায় নিঃস্ব হয়ে পড়েছে। এরমধ্যে কিছু কোম্পানির বিনিয়োগকারীরা লাভে রয়েছে, এটি অবশ্যই খুশির খবর। তবে প্রতিষ্ঠানগুলোর দর বাড়লেও এতে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের সংখ্যা নেহায়েত কম। এমনকি নেই বললেই চলে। লাভবান হয়েছে বড় বিনিয়োগকারীরা।

বিজনেস আওয়ার/১৫ জুন/ এ এইচ

ফেসবুকের মাধ্যমে আপনার মতামত জানান: