ঢাকা , মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

করোনাকালে ইনফ্লুয়েঞ্জা জ্বর হলে যা করণীয়

  • পোস্ট হয়েছে : ০৪:৩১ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ জুন ২০২০
  • 18

বিজনেস আওয়ার ডেস্ক : একদিকে দেশে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ও অন্যদিকে প্রচণ্ড খরতাপ আর বৃষ্টি। আর এই সময় অনেকেই জ্বর, সর্দি, কাশি, গলাব্যথা সমস্যায় ভূগছেন। আর এমন জ্বর, সর্দি, কাশি হলেই মানুষের মধ্যে আতঙ্ক দেখা দিচ্ছে।

বিশেষজ্ঞদের মতে, আবহাওয়া পরিবর্তনের এই সময় ইনফ্লুয়েঞ্জা ভাইরাল হওয়া খুবই সাধারণ ঘটনা। তবে করোনার কারণে তা মানুষের মধ্যে ভীতি তৈরি করছে। সাধারণত দুই থেকে তিনদিনের মধ্যেই সেরে যায় এই জ্বর। খুব বেশি হলে সারতে চার থেকে পাঁচ দিন সময় লাগে। তবে চিন্তার কিছু নেই

ভাইরাল জ্বরের কয়েকটি সাধারণ উপসর্গ-

১. শরীরে হালকা থেকে মাঝারি জ্বর ও গা ম্যাজম্যাজে করে।
২. সামান্য সর্দি ভাব, কখনও কখনও আবার নাক দিয়ে পানি পড়ে।
৩. হাঁচি এবং হালকা কাশিও থাকে।
৪. সারা গায়ে ব্যথা হয়।

করোনা কালীন সময়ে ইনফ্লুয়েঞ্জা ভাইরাল জ্বর প্রতিরোধ কিছু সাবধানতা অবলম্বন করতে পরামর্শ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। যেমন-

১. আক্রান্তদের থেকে দূরে থাকুন।
২. যদি ওই ব্যক্তির সংস্পর্শে আসেন তবে মুখে মাস্ক ব্যবহার করুন।
৩. যাদের হার্ট, ফুসফুস, কিডনি বা লিভার ও হাঁপানির সমস্যা আছে তারা নিয়মিত মাস্ক ব্যবহার করুন।
৪. বয়স্ক এবং প্রসূতিরাও নিয়মিত মাস্ক ব্যবহার করুন। সেই সঙ্গে নিজেরদের যত্ন নিন।
৫. ধুলোবালি থেকে দূরে থাকুন।
৬. হাত না ধুয়ে চোখে, নাকে এবং মুখে হাত দেবেন না।
৭. নিজেরা পরিষ্কার থাকার পাশাপাশি নিজের বাসস্থান ও তার চারিদিক পরিষ্কার রাখুন।

ইনফ্লুয়েঞ্জাতে আক্রান্ত হলে যে সব বিষয় মেনে চলতে হবে:-

১. চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে ওষুধ খান।
২ দুর্বল ভাব দূর করার জন্য মাল্টি-ভিটামিন খান।
৩. সবসময় মাস্ক পরে থাকুন।
৪. হাঁচি বা কাশির সময় টিস্যু ব্যবহার করুন এবং টিস্যুটি ঢাকনাযুক্ত ডাস্টবিনে ফেলুন।
৫. দিনে তিন থেকে চার বার গরম জলের ভাপ নিন এবং কুলিকুচি করুন।
৬. তরল খাবার খান।
৭. জ্বর হলে নিজে আলাদা ঘরে থাকুন, অন্যান্য সদস্যের সংস্পর্শে আসবেন না।

সূত্র: বোল্ড স্কাই

বিজনেস আওয়ার/১৪ জুন, ২০২০/এ

ফেসবুকের মাধ্যমে আপনার মতামত জানান:
ট্যাগ :

আপনার মতামত লিখুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার মেইলে তথ্য জমা করুন

করোনাকালে ইনফ্লুয়েঞ্জা জ্বর হলে যা করণীয়

পোস্ট হয়েছে : ০৪:৩১ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ জুন ২০২০

বিজনেস আওয়ার ডেস্ক : একদিকে দেশে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ও অন্যদিকে প্রচণ্ড খরতাপ আর বৃষ্টি। আর এই সময় অনেকেই জ্বর, সর্দি, কাশি, গলাব্যথা সমস্যায় ভূগছেন। আর এমন জ্বর, সর্দি, কাশি হলেই মানুষের মধ্যে আতঙ্ক দেখা দিচ্ছে।

বিশেষজ্ঞদের মতে, আবহাওয়া পরিবর্তনের এই সময় ইনফ্লুয়েঞ্জা ভাইরাল হওয়া খুবই সাধারণ ঘটনা। তবে করোনার কারণে তা মানুষের মধ্যে ভীতি তৈরি করছে। সাধারণত দুই থেকে তিনদিনের মধ্যেই সেরে যায় এই জ্বর। খুব বেশি হলে সারতে চার থেকে পাঁচ দিন সময় লাগে। তবে চিন্তার কিছু নেই

ভাইরাল জ্বরের কয়েকটি সাধারণ উপসর্গ-

১. শরীরে হালকা থেকে মাঝারি জ্বর ও গা ম্যাজম্যাজে করে।
২. সামান্য সর্দি ভাব, কখনও কখনও আবার নাক দিয়ে পানি পড়ে।
৩. হাঁচি এবং হালকা কাশিও থাকে।
৪. সারা গায়ে ব্যথা হয়।

করোনা কালীন সময়ে ইনফ্লুয়েঞ্জা ভাইরাল জ্বর প্রতিরোধ কিছু সাবধানতা অবলম্বন করতে পরামর্শ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। যেমন-

১. আক্রান্তদের থেকে দূরে থাকুন।
২. যদি ওই ব্যক্তির সংস্পর্শে আসেন তবে মুখে মাস্ক ব্যবহার করুন।
৩. যাদের হার্ট, ফুসফুস, কিডনি বা লিভার ও হাঁপানির সমস্যা আছে তারা নিয়মিত মাস্ক ব্যবহার করুন।
৪. বয়স্ক এবং প্রসূতিরাও নিয়মিত মাস্ক ব্যবহার করুন। সেই সঙ্গে নিজেরদের যত্ন নিন।
৫. ধুলোবালি থেকে দূরে থাকুন।
৬. হাত না ধুয়ে চোখে, নাকে এবং মুখে হাত দেবেন না।
৭. নিজেরা পরিষ্কার থাকার পাশাপাশি নিজের বাসস্থান ও তার চারিদিক পরিষ্কার রাখুন।

ইনফ্লুয়েঞ্জাতে আক্রান্ত হলে যে সব বিষয় মেনে চলতে হবে:-

১. চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে ওষুধ খান।
২ দুর্বল ভাব দূর করার জন্য মাল্টি-ভিটামিন খান।
৩. সবসময় মাস্ক পরে থাকুন।
৪. হাঁচি বা কাশির সময় টিস্যু ব্যবহার করুন এবং টিস্যুটি ঢাকনাযুক্ত ডাস্টবিনে ফেলুন।
৫. দিনে তিন থেকে চার বার গরম জলের ভাপ নিন এবং কুলিকুচি করুন।
৬. তরল খাবার খান।
৭. জ্বর হলে নিজে আলাদা ঘরে থাকুন, অন্যান্য সদস্যের সংস্পর্শে আসবেন না।

সূত্র: বোল্ড স্কাই

বিজনেস আওয়ার/১৪ জুন, ২০২০/এ

ফেসবুকের মাধ্যমে আপনার মতামত জানান: