ঢাকা , মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

১৪ বছর পর পরীক্ষায় পাস করলেন মম!

  • পোস্ট হয়েছে : ০৪:৫৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ জুন ২০২০
  • 9

বিনোদন ডেস্ক : ২০০৬ সালে অসংখ্য প্রতিযোগীকে পেছনে ফেলে লাক্স চ্যানেল আই সেরা সুন্দরীর মুকুট জয় করেন জাকিয়া বারী মম। এরপরের গল্পটা সবারই জানা। একটু একটু করে নিজেকে নিখাদ অভিনেত্রী হিসেবে গড়ে তোলেন নিজেকে। টিভি নাটক, বিজ্ঞাপন ও সিনেমায় কাজ শুরু করেন প্রফেশনাল শিল্পী হিসেবে।

জনপ্রিয়তা আর অর্থ তো বটেই, মিলেছে সু-অভিনয়ের স্বীকৃতিও। অথচ মম জানালেন নতুন এক তথ্য। যা অনেকের কাছেই বিস্ময়কর।

তিনি বলেন, অভিনয় জীবনের ১৪ বছরের মাথায় এসে অভিনেত্রী হিসেবে পরীক্ষা দিলাম। মনে ভয় ছিল, যদি পাস না করি! পরীক্ষাটি দিয়েছিলাম গেল মার্চে, দেশে করোনার আগুন লাগার আগে। আর ফলাফল পেলাম এই ঘরবন্দি জীবনে। পাস করেছি! এই নিরানন্দ সময়ে আনন্দের সংবাদ বটে।

পরীক্ষাটি ছিল বাংলাদেশ টেলিভিশনের। তালিকাভুক্ত শিল্পী হতে হলে প্রত্যেককেই পরীক্ষায় অংশ নিতে হয়। পাস করলেই মেলে শিল্পীর স্বীকৃতি। সুযোগ পাওয়া যায় বিটিভি প্রযোজিত নাটকে। তারই অংশ হিসেবে ক্যারিয়ারের ১৪ বছরের মাথায় ফের আরেকটি পরীক্ষায় অংশ নিয়ে করেছেন পাসও।

মম বলেন, এটা আসলে অন্যরকম অনুভূতি। আর যাই করি না কেন, এই পরীক্ষায় পাস করে খুব খুশি খুশি লাগছে। মনে হচ্ছে অভিনেত্রী হিসেবে এতদিনে আমি আসল স্বীকৃতি পেলাম। কারণ, এখন আমি সরকারি খাতায় তালিকাভুক্ত শিল্পী।

এদিকে শুটিংয়ে আর কোনও বাধা না থাকলেও মম আপাতত ঘরেই থাকছেন। আরও অন্তত এক মাস তিনি ঘরেই থাকতে চান। বাঁচলে অনেক কাজ করা যাবে। তাই নিরাপদে নিজ ঘরেই থাকতে চাই, আরও কিছু দিন। এমনটাই জানিয়েছেন তিনি।

বিজনেস আওয়ার/১৮ জুন, ২০২০/এ

ফেসবুকের মাধ্যমে আপনার মতামত জানান:
ট্যাগ :

আপনার মতামত লিখুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার মেইলে তথ্য জমা করুন

১৪ বছর পর পরীক্ষায় পাস করলেন মম!

পোস্ট হয়েছে : ০৪:৫৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ জুন ২০২০

বিনোদন ডেস্ক : ২০০৬ সালে অসংখ্য প্রতিযোগীকে পেছনে ফেলে লাক্স চ্যানেল আই সেরা সুন্দরীর মুকুট জয় করেন জাকিয়া বারী মম। এরপরের গল্পটা সবারই জানা। একটু একটু করে নিজেকে নিখাদ অভিনেত্রী হিসেবে গড়ে তোলেন নিজেকে। টিভি নাটক, বিজ্ঞাপন ও সিনেমায় কাজ শুরু করেন প্রফেশনাল শিল্পী হিসেবে।

জনপ্রিয়তা আর অর্থ তো বটেই, মিলেছে সু-অভিনয়ের স্বীকৃতিও। অথচ মম জানালেন নতুন এক তথ্য। যা অনেকের কাছেই বিস্ময়কর।

তিনি বলেন, অভিনয় জীবনের ১৪ বছরের মাথায় এসে অভিনেত্রী হিসেবে পরীক্ষা দিলাম। মনে ভয় ছিল, যদি পাস না করি! পরীক্ষাটি দিয়েছিলাম গেল মার্চে, দেশে করোনার আগুন লাগার আগে। আর ফলাফল পেলাম এই ঘরবন্দি জীবনে। পাস করেছি! এই নিরানন্দ সময়ে আনন্দের সংবাদ বটে।

পরীক্ষাটি ছিল বাংলাদেশ টেলিভিশনের। তালিকাভুক্ত শিল্পী হতে হলে প্রত্যেককেই পরীক্ষায় অংশ নিতে হয়। পাস করলেই মেলে শিল্পীর স্বীকৃতি। সুযোগ পাওয়া যায় বিটিভি প্রযোজিত নাটকে। তারই অংশ হিসেবে ক্যারিয়ারের ১৪ বছরের মাথায় ফের আরেকটি পরীক্ষায় অংশ নিয়ে করেছেন পাসও।

মম বলেন, এটা আসলে অন্যরকম অনুভূতি। আর যাই করি না কেন, এই পরীক্ষায় পাস করে খুব খুশি খুশি লাগছে। মনে হচ্ছে অভিনেত্রী হিসেবে এতদিনে আমি আসল স্বীকৃতি পেলাম। কারণ, এখন আমি সরকারি খাতায় তালিকাভুক্ত শিল্পী।

এদিকে শুটিংয়ে আর কোনও বাধা না থাকলেও মম আপাতত ঘরেই থাকছেন। আরও অন্তত এক মাস তিনি ঘরেই থাকতে চান। বাঁচলে অনেক কাজ করা যাবে। তাই নিরাপদে নিজ ঘরেই থাকতে চাই, আরও কিছু দিন। এমনটাই জানিয়েছেন তিনি।

বিজনেস আওয়ার/১৮ জুন, ২০২০/এ

ফেসবুকের মাধ্যমে আপনার মতামত জানান: