ঢাকা , মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

করোনা পরীক্ষা করাতে লাগবে টাকা

  • পোস্ট হয়েছে : ০১:২৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৮ জুন ২০২০
  • 23

বিজনেস আওয়ার প্রতিবেদক : এবার থেকে করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের পরীক্ষা করতে গুনতে হবে টাকা । সরকারি হাসপাতাল ও বুথে গিয়ে নমুনা পরীক্ষা করালে ফি দিতে হবে ২০০ টাকা। আর বাসায় গিয়েও নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার ক্ষেত্রে ফি দিতে হবে ৫০০ টাকা।

সরকারের তরফ থেকে এমন পরিকল্পনা করা হচ্ছে উল্লেখ করে সংশ্লিষ্ট সুত্র জানায়, এ বিষয়ে এরইমধ্যে অর্থ মন্ত্রণালয়ের সম্মতি নেয়া হয়েছে। চলতি কিংবা আগামী সপ্তাহের মধ্যেই স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে এ সংক্রান্ত একটি প্রজ্ঞাপন জারি করা হতে পারে।

জানা গেছে, বর্তমানে ব্যয়বহুল এ পরীক্ষা সম্পূর্ণ বিনামূল্যে করার ফলে পরীক্ষাটির অনেক অপব্যবহার হচ্ছে। এই অপব্যবহার রোধে একটি মূল্য নির্ধারণ করে দেয়ার নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সংশ্লিষ্ট একাধিক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, একেকটি নমুনা পরীক্ষার পেছনে যে টাকা খরচ হয়, বাংলাদেশের মতো দেশে এটি দুই থেকে তিন মাস বিনা মূল্যে করা সম্ভব। কিন্তু দীর্ঘ মেয়াদে সম্ভব নয়। দেশে যে হারে করোনা সংক্রমণ বাড়ছে, তাতে বোঝা যাচ্ছে দীর্ঘ মেয়াদে নমুনা পরীক্ষা করতে হবে। এ জন্য সরকার একটি ফি নির্ধারণ করতে যাচ্ছে।

এ বিষয়ে স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব আব্দুল মান্নান বলেন, করোনার নমুনা পরীক্ষার ক্ষেত্রে আমরা একটি ফি নির্ধারণ করেছি। বিষয়টি নিয়ে আলোচনা হচ্ছে। চলতি সপ্তাহের মধ্যে ফি নির্ধারণ সংক্রান্ত একটি প্রজ্ঞাপন জারি করা হবে বলে আশা করছি।

এর আগে চলতি বছরের ২১ জানুয়ারি থেকে সরকারিভাবে সম্পূর্ণ বিনামূল্যে আরটি-পিসিআর ল্যাবে করোনাভাইরাসের নমুনা পরীক্ষা শুরু হয়। প্রথমদিকে শুধু স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানে (আইইডিসিআর) নমুনা পরীক্ষা করা হতো।

সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় পরবর্তীতে সরকারি বিভিন্ন মেডিকেল কলেজ হাসপাতালসহ অন্যান্য প্রতিষ্ঠান এবং বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে নমুনা পরীক্ষা শুরু হয়। সেই ধারাবাহিকতায় বর্তমানে ৬৬টি সরকারি ও বেসরকারি ল্যাবে নমুনা পরীক্ষা হচ্ছে।

উল্লেখ্য, দেশে করোনাভাইরাস প্রথম শনাক্ত হয় গত ৮ মার্চ। আর প্রথম মৃত্যু হয় ১৮ মার্চ। দেশে এখন পর্যন্ত এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন এক লাখ ৩৩ হাজার ৯৭৮ জন মানুষ। আর মোট মৃতের সংখ্যা এক হাজার ৬৯৫ জন।

বিজনেস আওয়ার/২৮ জুন, ২০২০/এ

ফেসবুকের মাধ্যমে আপনার মতামত জানান:
ট্যাগ :

আপনার মতামত লিখুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার মেইলে তথ্য জমা করুন

করোনা পরীক্ষা করাতে লাগবে টাকা

পোস্ট হয়েছে : ০১:২৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৮ জুন ২০২০

বিজনেস আওয়ার প্রতিবেদক : এবার থেকে করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের পরীক্ষা করতে গুনতে হবে টাকা । সরকারি হাসপাতাল ও বুথে গিয়ে নমুনা পরীক্ষা করালে ফি দিতে হবে ২০০ টাকা। আর বাসায় গিয়েও নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার ক্ষেত্রে ফি দিতে হবে ৫০০ টাকা।

সরকারের তরফ থেকে এমন পরিকল্পনা করা হচ্ছে উল্লেখ করে সংশ্লিষ্ট সুত্র জানায়, এ বিষয়ে এরইমধ্যে অর্থ মন্ত্রণালয়ের সম্মতি নেয়া হয়েছে। চলতি কিংবা আগামী সপ্তাহের মধ্যেই স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে এ সংক্রান্ত একটি প্রজ্ঞাপন জারি করা হতে পারে।

জানা গেছে, বর্তমানে ব্যয়বহুল এ পরীক্ষা সম্পূর্ণ বিনামূল্যে করার ফলে পরীক্ষাটির অনেক অপব্যবহার হচ্ছে। এই অপব্যবহার রোধে একটি মূল্য নির্ধারণ করে দেয়ার নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সংশ্লিষ্ট একাধিক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, একেকটি নমুনা পরীক্ষার পেছনে যে টাকা খরচ হয়, বাংলাদেশের মতো দেশে এটি দুই থেকে তিন মাস বিনা মূল্যে করা সম্ভব। কিন্তু দীর্ঘ মেয়াদে সম্ভব নয়। দেশে যে হারে করোনা সংক্রমণ বাড়ছে, তাতে বোঝা যাচ্ছে দীর্ঘ মেয়াদে নমুনা পরীক্ষা করতে হবে। এ জন্য সরকার একটি ফি নির্ধারণ করতে যাচ্ছে।

এ বিষয়ে স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব আব্দুল মান্নান বলেন, করোনার নমুনা পরীক্ষার ক্ষেত্রে আমরা একটি ফি নির্ধারণ করেছি। বিষয়টি নিয়ে আলোচনা হচ্ছে। চলতি সপ্তাহের মধ্যে ফি নির্ধারণ সংক্রান্ত একটি প্রজ্ঞাপন জারি করা হবে বলে আশা করছি।

এর আগে চলতি বছরের ২১ জানুয়ারি থেকে সরকারিভাবে সম্পূর্ণ বিনামূল্যে আরটি-পিসিআর ল্যাবে করোনাভাইরাসের নমুনা পরীক্ষা শুরু হয়। প্রথমদিকে শুধু স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানে (আইইডিসিআর) নমুনা পরীক্ষা করা হতো।

সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় পরবর্তীতে সরকারি বিভিন্ন মেডিকেল কলেজ হাসপাতালসহ অন্যান্য প্রতিষ্ঠান এবং বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে নমুনা পরীক্ষা শুরু হয়। সেই ধারাবাহিকতায় বর্তমানে ৬৬টি সরকারি ও বেসরকারি ল্যাবে নমুনা পরীক্ষা হচ্ছে।

উল্লেখ্য, দেশে করোনাভাইরাস প্রথম শনাক্ত হয় গত ৮ মার্চ। আর প্রথম মৃত্যু হয় ১৮ মার্চ। দেশে এখন পর্যন্ত এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন এক লাখ ৩৩ হাজার ৯৭৮ জন মানুষ। আর মোট মৃতের সংখ্যা এক হাজার ৬৯৫ জন।

বিজনেস আওয়ার/২৮ জুন, ২০২০/এ

ফেসবুকের মাধ্যমে আপনার মতামত জানান: