ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০২৪, ৫ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ভারতে আল-কায়েদার সাথে জড়িত সন্দেহে ৪ বাংলাদেশি গ্রেফতার

  • পোস্ট হয়েছে : ০৪:০৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ মে ২০২৩
  • 13

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: আল-কায়েদায় নতুন সদস্য নিয়োগ ও অর্থ সংগ্রহের অভিযোগে ভারতের পশ্চিম উপকূলীয় রাজ্য গুজরাটে চার বাংলাদেশিকে গ্রেফতার করেছে সেখানকার সন্ত্রাসবিরোধী স্কোয়াড (এটিএস)।

সোমবার গুজরাটের সন্ত্রাসবিরোধী স্কোয়াডের এক বিবৃতিতে বাংলাদেশিদের গ্রেফতারের তথ্য জানানো হয়েছে।

এতে বলা হয়েছে, অবৈধভাবে ভারতে প্রবেশ, আহমেদাবাদে স্থানীয় যুবকদের উগ্রপন্থী করে তোলার চেষ্টা ও জঙ্গিগোষ্ঠী আল-কায়েদার জন্য অর্থ সংগ্রহ করেছে গ্রেফতারকৃত চার বাংলাদেশি।

গুজরাট এটিএসের উপ-মহাপরিদর্শক (ডিআইজি) দীপন ভদ্রনের জারি করা বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ওই চারজন আল-কায়েদার স্থানীয় শাখার অংশ। বাংলাদেশে আল-কায়েদার প্রশিক্ষকরা তাদের প্রশিক্ষণ দিয়েছেন।

গুজরাট পুলিশ গ্রেফতারকৃত চার বাংলাদেশির পরিচয় প্রকাশ করেছে। তারা হলেন, মোহাম্মদ সজিব, মুন্না খালিদ আনসারি, আজহারুল ইসলাম আনসারি ও মমিনুল আনসারি।

ডিআইজি দীপন ভদ্রন বলছেন, গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে আল-কায়েদায় নতুন সদস্য নিয়োগের সাথে জড়িত চার অবৈধ বাংলাদেশি অভিবাসীকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

তিনি বলেছেন, পুলিশ প্রথমে সজিবকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য গ্রেফতার করে। বাংলাদেশি এই নাগরিক আহমেদাবাদের রাখাল এলাকায় অবস্থান করছিলেন।

‘জিজ্ঞাসাবাদে সজিব জানান, তিনি ও অন্য তিন বাংলাদেশি আল-কায়েদার নেটওয়ার্কের সঙ্গে জড়িত। বাংলাদেশে অবস্থানরত তাদের প্রশিক্ষকদের কাছ থেকে তারা নির্দেশনা পাচ্ছিলেন। বাংলাদেশ থেকে যিনি তাদের নির্দেশনা দেন, তার নাম শরিফুল ইসলাম। শরিফুলের মাধ্যমে এই চার তরুণের সাথে শায়বার নামে এক ব্যক্তির পরিচয় হয়। আর এই শায়বার বাংলাদেশে ময়মনসিংহ জেলায় আল-কায়েদার কার্যক্রমের নেতৃত্ব দিচ্ছেন বলে জানা গেছে।’

এটিএসের মতে, সন্দেহভাজনরা গুজরাটের লোকজনকে মৌলবাদী করে তোলার চেষ্টা করেছিলেন। একই সঙ্গে সেখান থেকে অর্থ সংগ্রহের পর তা বাংলাদেশে স্থানান্তর করেছেন। তবে কী পরিমাণ অর্থ বাংলাদেশে স্থানান্তর করা হয়েছে সেবিষয়ে কিছু জানায়নি গুজরাট এটিএস।

‘আহমেদাবাদের ওধাব ও নারোল এলাকায় ভুয়া পরিচয়পত্র ব্যবহার করে অবৈধভাবে বসবাসকারী চার বাংলাদেশি সম্পর্কে তথ্য পায় গুজরাট এটিএস। তারা আল-কায়েদার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট এবং শহরের মুসলিম বাসিন্দাদের এই জঙ্গি সংগঠনে যোগদানের জন্য অনুপ্রাণিত করছেন। পাশাপাশি আল-কায়েদার জন্য তহবিলও সংগ্রহ করছেন তারা।’

গুজরাটের সন্ত্রাসবিরোধী স্কোয়াড বলছে, গ্রেফতারকৃত চারজনের কাছ থেকে জঙ্গিগোষ্ঠী আল-কায়েদার গণমাধ্যম শাখার তৈরি করা ভুয়া পরিচয়পত্র ও বই জব্দ করা হয়েছে।

সূত্র: হিন্দুস্তান টাইমস।

বিজনেস আওয়ার/২৩ মে, ২০২৩/এএইচএ

ফেসবুকের মাধ্যমে আপনার মতামত জানান:
ট্যাগ :

আপনার মতামত লিখুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার মেইলে তথ্য জমা করুন

ভারতে আল-কায়েদার সাথে জড়িত সন্দেহে ৪ বাংলাদেশি গ্রেফতার

পোস্ট হয়েছে : ০৪:০৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ মে ২০২৩

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: আল-কায়েদায় নতুন সদস্য নিয়োগ ও অর্থ সংগ্রহের অভিযোগে ভারতের পশ্চিম উপকূলীয় রাজ্য গুজরাটে চার বাংলাদেশিকে গ্রেফতার করেছে সেখানকার সন্ত্রাসবিরোধী স্কোয়াড (এটিএস)।

সোমবার গুজরাটের সন্ত্রাসবিরোধী স্কোয়াডের এক বিবৃতিতে বাংলাদেশিদের গ্রেফতারের তথ্য জানানো হয়েছে।

এতে বলা হয়েছে, অবৈধভাবে ভারতে প্রবেশ, আহমেদাবাদে স্থানীয় যুবকদের উগ্রপন্থী করে তোলার চেষ্টা ও জঙ্গিগোষ্ঠী আল-কায়েদার জন্য অর্থ সংগ্রহ করেছে গ্রেফতারকৃত চার বাংলাদেশি।

গুজরাট এটিএসের উপ-মহাপরিদর্শক (ডিআইজি) দীপন ভদ্রনের জারি করা বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ওই চারজন আল-কায়েদার স্থানীয় শাখার অংশ। বাংলাদেশে আল-কায়েদার প্রশিক্ষকরা তাদের প্রশিক্ষণ দিয়েছেন।

গুজরাট পুলিশ গ্রেফতারকৃত চার বাংলাদেশির পরিচয় প্রকাশ করেছে। তারা হলেন, মোহাম্মদ সজিব, মুন্না খালিদ আনসারি, আজহারুল ইসলাম আনসারি ও মমিনুল আনসারি।

ডিআইজি দীপন ভদ্রন বলছেন, গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে আল-কায়েদায় নতুন সদস্য নিয়োগের সাথে জড়িত চার অবৈধ বাংলাদেশি অভিবাসীকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

তিনি বলেছেন, পুলিশ প্রথমে সজিবকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য গ্রেফতার করে। বাংলাদেশি এই নাগরিক আহমেদাবাদের রাখাল এলাকায় অবস্থান করছিলেন।

‘জিজ্ঞাসাবাদে সজিব জানান, তিনি ও অন্য তিন বাংলাদেশি আল-কায়েদার নেটওয়ার্কের সঙ্গে জড়িত। বাংলাদেশে অবস্থানরত তাদের প্রশিক্ষকদের কাছ থেকে তারা নির্দেশনা পাচ্ছিলেন। বাংলাদেশ থেকে যিনি তাদের নির্দেশনা দেন, তার নাম শরিফুল ইসলাম। শরিফুলের মাধ্যমে এই চার তরুণের সাথে শায়বার নামে এক ব্যক্তির পরিচয় হয়। আর এই শায়বার বাংলাদেশে ময়মনসিংহ জেলায় আল-কায়েদার কার্যক্রমের নেতৃত্ব দিচ্ছেন বলে জানা গেছে।’

এটিএসের মতে, সন্দেহভাজনরা গুজরাটের লোকজনকে মৌলবাদী করে তোলার চেষ্টা করেছিলেন। একই সঙ্গে সেখান থেকে অর্থ সংগ্রহের পর তা বাংলাদেশে স্থানান্তর করেছেন। তবে কী পরিমাণ অর্থ বাংলাদেশে স্থানান্তর করা হয়েছে সেবিষয়ে কিছু জানায়নি গুজরাট এটিএস।

‘আহমেদাবাদের ওধাব ও নারোল এলাকায় ভুয়া পরিচয়পত্র ব্যবহার করে অবৈধভাবে বসবাসকারী চার বাংলাদেশি সম্পর্কে তথ্য পায় গুজরাট এটিএস। তারা আল-কায়েদার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট এবং শহরের মুসলিম বাসিন্দাদের এই জঙ্গি সংগঠনে যোগদানের জন্য অনুপ্রাণিত করছেন। পাশাপাশি আল-কায়েদার জন্য তহবিলও সংগ্রহ করছেন তারা।’

গুজরাটের সন্ত্রাসবিরোধী স্কোয়াড বলছে, গ্রেফতারকৃত চারজনের কাছ থেকে জঙ্গিগোষ্ঠী আল-কায়েদার গণমাধ্যম শাখার তৈরি করা ভুয়া পরিচয়পত্র ও বই জব্দ করা হয়েছে।

সূত্র: হিন্দুস্তান টাইমস।

বিজনেস আওয়ার/২৩ মে, ২০২৩/এএইচএ

ফেসবুকের মাধ্যমে আপনার মতামত জানান: