ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

এসএমইর শতভাগ কোম্পানির দর বৃদ্ধি : হল্টেড ৩৬ শতাংশ

  • পোস্ট হয়েছে : ০২:৪৭ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৮ মে ২০২৩
  • 5

বিজনেস আওয়ার প্রতিবেদক : গত কয়েকদিন ধরে অবমূল্যায়িত থাকা এসএমই মার্কেটে বিনিয়োগকারীদের অংশগ্রহন বাড়ছে। এতে করে বাজারটিতে শেয়ারের দর ও সূচক বাড়ছে। যার ধারাবাহিকতায় রবিবার (২৮ মে) এই বাজারের লেনদেন হওয়া শতভাগ কোম্পানির দর বেড়েছে। এছাড়া ৩৬ শতাংশ কোম্পানির শেয়ার বিক্রেতা শূন্য বা হল্টেড হয়েছিল।

গত কয়েকদিনে এই মার্কেটে বিনিয়োগকারীদের আগ্রহের অন্যতম কারন হিসাবে রয়েছে তুলনামূলক কম শেয়ার দর। এছাড়া লেনদেনযোগ্য শেয়ার সংখ্যা কম। আর মূল মার্কেটে একটি নতুন কোম্পানির শুরুতে কয়েক গুণ দর বৃদ্ধি স্বাভাবিক হলেও এখানে সেটা হয়নি। যাতে অবমূল্যায়িত ছিল এসএমইর কোম্পানিগুলোর দর।

অথচ মূল মার্কেটের ন্যায় এসএমইর কোম্পানিগুলোর ক্ষেত্রেও লভ্যাংশ দেওয়ার বাধ্যবাধকতা রয়েছে। এমনকি শেয়ারবাজার থেকে অর্থ উত্তোলনের অনুমোদনের সময় অন্যসব কোম্পানির ন্যায় এই খাতের কোম্পানিগুলোরও ৩ বছর সমপরিমাণ লভ্যাংশ দেওয়ার শর্ত দেওয়া হয়। যা পরিপালনের পরেও এসএমইর শেয়ার তুলনামূলক কম দরে অবস্থান করছে।

কমিশনের বহূল প্রত্যাশিত এই এসএমই বাজারে বিনিয়োগকারীদের অংশগ্রহন বাড়াতে গত ৪ এপ্রিল এই বাজারে লেনদেনে যোগ্য হতে কোয়ালিফাইড ইনভেস্টরদের শেয়ারবাজারে বিনিয়োগের সর্বনিম্ন সীমা আবারও ২০ লাখ টাকায় নামিয়ে আনা হয়েছে। এতে করে জুন কোয়ার্টার শেষে এই বাজারে বিনিয়োগের জন্য কোয়ালিফাইড ইনভেস্টরের সংখ্যা বাড়বে। যাতে করে স্বাভাবিকভাবেই এসএমইর শেয়ারে ইতিবাচক প্রভাব পড়তে পারে।

দেখা গেছে,রবিবার এসএমই বাজারে মূল্যসূচক বেড়েছে ৮৮ পয়েন্ট। যা আগের দিন বেড়েছিল ১০০ পয়েন্ট। আর আগের দিনের ১৪ কোটি ৫৯ লাখ টাকার লেনদেন রবিবার বেড়ে হয়েছে ১৫ কোটি ৪৯ লাখ টাকা।

এই বড় উত্থানের পেছনে একমাত্র কারন হিসাবে রয়েছে এসএমই মার্কেটে লেনদেন হওয়া ১৪টি কোম্পানির মধ্যে সবগুলোর শেয়ারের দর বৃদ্ধি। এদিন স্টার অ্যাডহেসিভ, হিমাদ্রি লিমিটেড, বেঙ্গল বিস্কুট, কৃষিবীদ সীড ও মামুন অ্যাগ্রোর শেয়ার হল্ডেট বা বিক্রেতা শূন্য হয়েছে।

এসএমই মার্কেটে ওটিসি থেকে ৫টি আনা হলেও বাকি ১০টি নতুন কোম্পানি। আইপিওর ন্যায় অর্থ সংগ্রহ করে লেনদেন শুরু হয়েছে। সেসব শেয়ারও কম দরে রয়েছে। তবে মূল মার্কেটে এমন নতুন শেয়ারে শুরুতে টানা দর বৃদ্ধির মাধ্যমে কয়েক গুণ হয়ে যাওয়া স্বাভাবিক ঘটনা।

এই বাজারে লেনদেনে আসার অপেক্ষায় রয়েছে আরও দুটি কোম্পানি। এরমধ্যে আল-মদিনা ফার্মার কিউআইওতে চাঁদা গ্রহণ শেষ হয়েছে। যেকোন দিন কোম্পানিটির শেয়ার লেনদেন শুরু হতে পারে। আর এম.কে ফুটওয়্যারের কিউআইওতে চাঁদা গ্রহণ শুরু হবে আগামি মাসের ১১ তারিখে।

বিজনেস আওয়ার/২৮ মে, ২০২৩/আরএ

ফেসবুকের মাধ্যমে আপনার মতামত জানান:
ট্যাগ :

আপনার মতামত লিখুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার মেইলে তথ্য জমা করুন

এসএমইর শতভাগ কোম্পানির দর বৃদ্ধি : হল্টেড ৩৬ শতাংশ

পোস্ট হয়েছে : ০২:৪৭ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৮ মে ২০২৩

বিজনেস আওয়ার প্রতিবেদক : গত কয়েকদিন ধরে অবমূল্যায়িত থাকা এসএমই মার্কেটে বিনিয়োগকারীদের অংশগ্রহন বাড়ছে। এতে করে বাজারটিতে শেয়ারের দর ও সূচক বাড়ছে। যার ধারাবাহিকতায় রবিবার (২৮ মে) এই বাজারের লেনদেন হওয়া শতভাগ কোম্পানির দর বেড়েছে। এছাড়া ৩৬ শতাংশ কোম্পানির শেয়ার বিক্রেতা শূন্য বা হল্টেড হয়েছিল।

গত কয়েকদিনে এই মার্কেটে বিনিয়োগকারীদের আগ্রহের অন্যতম কারন হিসাবে রয়েছে তুলনামূলক কম শেয়ার দর। এছাড়া লেনদেনযোগ্য শেয়ার সংখ্যা কম। আর মূল মার্কেটে একটি নতুন কোম্পানির শুরুতে কয়েক গুণ দর বৃদ্ধি স্বাভাবিক হলেও এখানে সেটা হয়নি। যাতে অবমূল্যায়িত ছিল এসএমইর কোম্পানিগুলোর দর।

অথচ মূল মার্কেটের ন্যায় এসএমইর কোম্পানিগুলোর ক্ষেত্রেও লভ্যাংশ দেওয়ার বাধ্যবাধকতা রয়েছে। এমনকি শেয়ারবাজার থেকে অর্থ উত্তোলনের অনুমোদনের সময় অন্যসব কোম্পানির ন্যায় এই খাতের কোম্পানিগুলোরও ৩ বছর সমপরিমাণ লভ্যাংশ দেওয়ার শর্ত দেওয়া হয়। যা পরিপালনের পরেও এসএমইর শেয়ার তুলনামূলক কম দরে অবস্থান করছে।

কমিশনের বহূল প্রত্যাশিত এই এসএমই বাজারে বিনিয়োগকারীদের অংশগ্রহন বাড়াতে গত ৪ এপ্রিল এই বাজারে লেনদেনে যোগ্য হতে কোয়ালিফাইড ইনভেস্টরদের শেয়ারবাজারে বিনিয়োগের সর্বনিম্ন সীমা আবারও ২০ লাখ টাকায় নামিয়ে আনা হয়েছে। এতে করে জুন কোয়ার্টার শেষে এই বাজারে বিনিয়োগের জন্য কোয়ালিফাইড ইনভেস্টরের সংখ্যা বাড়বে। যাতে করে স্বাভাবিকভাবেই এসএমইর শেয়ারে ইতিবাচক প্রভাব পড়তে পারে।

দেখা গেছে,রবিবার এসএমই বাজারে মূল্যসূচক বেড়েছে ৮৮ পয়েন্ট। যা আগের দিন বেড়েছিল ১০০ পয়েন্ট। আর আগের দিনের ১৪ কোটি ৫৯ লাখ টাকার লেনদেন রবিবার বেড়ে হয়েছে ১৫ কোটি ৪৯ লাখ টাকা।

এই বড় উত্থানের পেছনে একমাত্র কারন হিসাবে রয়েছে এসএমই মার্কেটে লেনদেন হওয়া ১৪টি কোম্পানির মধ্যে সবগুলোর শেয়ারের দর বৃদ্ধি। এদিন স্টার অ্যাডহেসিভ, হিমাদ্রি লিমিটেড, বেঙ্গল বিস্কুট, কৃষিবীদ সীড ও মামুন অ্যাগ্রোর শেয়ার হল্ডেট বা বিক্রেতা শূন্য হয়েছে।

এসএমই মার্কেটে ওটিসি থেকে ৫টি আনা হলেও বাকি ১০টি নতুন কোম্পানি। আইপিওর ন্যায় অর্থ সংগ্রহ করে লেনদেন শুরু হয়েছে। সেসব শেয়ারও কম দরে রয়েছে। তবে মূল মার্কেটে এমন নতুন শেয়ারে শুরুতে টানা দর বৃদ্ধির মাধ্যমে কয়েক গুণ হয়ে যাওয়া স্বাভাবিক ঘটনা।

এই বাজারে লেনদেনে আসার অপেক্ষায় রয়েছে আরও দুটি কোম্পানি। এরমধ্যে আল-মদিনা ফার্মার কিউআইওতে চাঁদা গ্রহণ শেষ হয়েছে। যেকোন দিন কোম্পানিটির শেয়ার লেনদেন শুরু হতে পারে। আর এম.কে ফুটওয়্যারের কিউআইওতে চাঁদা গ্রহণ শুরু হবে আগামি মাসের ১১ তারিখে।

বিজনেস আওয়ার/২৮ মে, ২০২৩/আরএ

ফেসবুকের মাধ্যমে আপনার মতামত জানান: