ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কলেজ ক্যাম্পাসের টবে গাঁজার গাছ, কক্ষে মাদক সেবনের সরঞ্জাম

  • পোস্ট হয়েছে : ০১:৪৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ৪ জুন ২০২৩
  • 23

বিজনেস আওয়ার প্রতিবেদক: জামালপুরের ইসলামপুরে শেখ হাসিনা ইনস্টিটিউট অব হেলথ টেকনোলজির ক্যাম্পাসে মিলল গাঁজার গাছ। এছাড়া জব্দ করা হয়েছে মাদকদ্রব্য সেবনের সরঞ্জাম। এ ঘটনায় অভিযুক্ত দুই ছাত্রলীগ নেতা পালিয়ে গেলে কাউকে আটক করা যায়নি।

শুক্রবার (০২ জুন) রাতে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানটির ২১৪ নম্বর কক্ষ থেকে গাঁজার গাছসহ ইয়াবা সেবনের সরঞ্জাম ও মদের বোতল উদ্ধার করে পুলিশ।

অভিযুক্তরা হলেন- শেখ হাসিনা ইনস্টিটিউট অব হেলথ টেকনোলজির প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী রিফাত আহমেদ। তিনি ইসলামপুর উপজেলা ছাত্রলীগের সদস্য ও ইসলামপুর উপজেলার ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ মিয়ার ভাগিনা। এছাড়া রায়হান কলেজটির দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ও পৌরসভা ছাত্রলীগে ৭ নং ওয়ার্ডের সভাপতি।

এ ঘটনায় শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, রিফাত আহমেদ ও রায়হান নামে দুই শিক্ষার্থী প্রতিষ্ঠানটিতে মাদকের রাজ্য তৈরি করেছেন। কেউ প্রতিবাদ করলে তাকে মারধর করাসহ হত্যার হুমকিও দিতেন তারা।

কলেজটির শিক্ষার্থী রাফি বলেন, বিভিন্ন সময় রিফাত আহমেদ বহিরাগত সন্ত্রাসীদের নিয়ে আমাদের ক্যাম্পাসে প্রবেশ করে। সেই সঙ্গে আমাদের কলেজের ২১৪ নম্বর রুমে একটি গাঁজা গাছ রোপণ করে রিফাত ও আরেক ছাত্রলীগ নেতা রায়হান৷ এছাড়া ওই রুমটিতে গিয়ে তারা অনেকবার ইয়াবা সেবন ও মদপানসহ নানা অপকর্ম করেন। বিষয়টি নিয়ে আমরা শিক্ষার্থীরা প্রতিবাদ করলে আমাদের মারধর ও মেরে ফেলার হুমকি দেয়।

তিনি আরও বলেন, গতকাল রাতে তাদের এই অপকর্ম সহ্য না করতে পরে পুলিশকে খবর দেওয়া হলে পুলিশ এসে গাঁজার গাছ, মদের বোতল ও ইয়াবা সেবনের সরঞ্জাম উদ্ধার করে নিয়ে যায়। এর আগেই রিফাত ও রায়হান তাদের সন্ত্রাসীদের নিয়ে পালিয়ে যায়।

তাসনিম নামের আরেক শিক্ষার্থীর অভিযোগ, আমরা কলেজে শান্তি মতো থাকতে পারি না। ছাত্রলীগের প্রভাব দেখিয়ে তারা অপকর্ম করে আমরা কিছু বললে আমাদের মারধর করে। আমাদের কক্ষ ছেড়ে যেতে বলে। আমরা এর বিচার চাই৷

এ বিষয়ে শেখ হাসিনা ইনস্টিটিউট অব হেলথ টেকনোলজির অধ্যক্ষ প্রদীপ কুমার শাহ বলেন, গতকাল দুই পক্ষ ছাত্রের ভেতরে মারামারি হয়। পরে পুলিশ আসে পরিস্থিতি সামাল দিতে৷ কিন্তু পুলিশ আসার পর একটি রুমে টপের ভেতর একটি গাছের চারা পাওয়া গেছে ৷ আমরা সন্দেহ করছি এটি গাঁজা গাছের চারা হবে৷ ক্যাম্পাসে দুই একজন থাকতে পারে যারা এডিক্টেট হবে হয়তো ৷ এগুলো পুলিশ জব্দ করে নিয়ে যায়৷ আমরা এই ঘটনাটির জন্য একটি তদন্ত কমিটি করেছি। আমরা গুরুত্ব দিয়ে বিষয়টি দেখছি৷ যারা এই ঘটনায় সম্পৃক্ত তাদের বিরুদ্ধে কঠিন ব্যবস্থা গ্রহণ করব।

ইসলামপুর উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ মিয়া বলেন, ছেলেগুলো আমাদের ছাত্রলীগের সদস্য। এর মধ্যে রিফাত আমাকে মামা করে ডাকে। সেখান থেকেই আমি তাকে ভাগনে বলি। এসব কার্যক্রম সম্পর্কে আমি জানতাম না। গতকাল শুনেছি ৷ আমরা আমাদের মতো তদন্ত করব বিষয়টি নিয়ে। আমাদের সদস্য যেই হোক তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে ৷

ইসলামপুর মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মাহমুদুল হাসান বলেন, গতকাল আমরা একটি ঝামেলার কথা শুনে কলেজটিতে যাই৷ সেখানে গিয়ে এসব মাদকদ্রব্য সেবনে ব্যবহৃত সরঞ্জাম উদ্ধারসহ একটি গাঁজা গাছ উদ্ধার করা হয়। আমরা বিষয়টি নিয়ে তদন্ত করছি ৷ ওই ক্যাম্পাস এলাকার নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে ৷

বিজনেস আওয়ার/০৪ জুন ২০২৩/এএইচএ

ফেসবুকের মাধ্যমে আপনার মতামত জানান:
ট্যাগ :

আপনার মতামত লিখুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার মেইলে তথ্য জমা করুন

কলেজ ক্যাম্পাসের টবে গাঁজার গাছ, কক্ষে মাদক সেবনের সরঞ্জাম

পোস্ট হয়েছে : ০১:৪৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ৪ জুন ২০২৩

বিজনেস আওয়ার প্রতিবেদক: জামালপুরের ইসলামপুরে শেখ হাসিনা ইনস্টিটিউট অব হেলথ টেকনোলজির ক্যাম্পাসে মিলল গাঁজার গাছ। এছাড়া জব্দ করা হয়েছে মাদকদ্রব্য সেবনের সরঞ্জাম। এ ঘটনায় অভিযুক্ত দুই ছাত্রলীগ নেতা পালিয়ে গেলে কাউকে আটক করা যায়নি।

শুক্রবার (০২ জুন) রাতে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানটির ২১৪ নম্বর কক্ষ থেকে গাঁজার গাছসহ ইয়াবা সেবনের সরঞ্জাম ও মদের বোতল উদ্ধার করে পুলিশ।

অভিযুক্তরা হলেন- শেখ হাসিনা ইনস্টিটিউট অব হেলথ টেকনোলজির প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী রিফাত আহমেদ। তিনি ইসলামপুর উপজেলা ছাত্রলীগের সদস্য ও ইসলামপুর উপজেলার ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ মিয়ার ভাগিনা। এছাড়া রায়হান কলেজটির দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ও পৌরসভা ছাত্রলীগে ৭ নং ওয়ার্ডের সভাপতি।

এ ঘটনায় শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, রিফাত আহমেদ ও রায়হান নামে দুই শিক্ষার্থী প্রতিষ্ঠানটিতে মাদকের রাজ্য তৈরি করেছেন। কেউ প্রতিবাদ করলে তাকে মারধর করাসহ হত্যার হুমকিও দিতেন তারা।

কলেজটির শিক্ষার্থী রাফি বলেন, বিভিন্ন সময় রিফাত আহমেদ বহিরাগত সন্ত্রাসীদের নিয়ে আমাদের ক্যাম্পাসে প্রবেশ করে। সেই সঙ্গে আমাদের কলেজের ২১৪ নম্বর রুমে একটি গাঁজা গাছ রোপণ করে রিফাত ও আরেক ছাত্রলীগ নেতা রায়হান৷ এছাড়া ওই রুমটিতে গিয়ে তারা অনেকবার ইয়াবা সেবন ও মদপানসহ নানা অপকর্ম করেন। বিষয়টি নিয়ে আমরা শিক্ষার্থীরা প্রতিবাদ করলে আমাদের মারধর ও মেরে ফেলার হুমকি দেয়।

তিনি আরও বলেন, গতকাল রাতে তাদের এই অপকর্ম সহ্য না করতে পরে পুলিশকে খবর দেওয়া হলে পুলিশ এসে গাঁজার গাছ, মদের বোতল ও ইয়াবা সেবনের সরঞ্জাম উদ্ধার করে নিয়ে যায়। এর আগেই রিফাত ও রায়হান তাদের সন্ত্রাসীদের নিয়ে পালিয়ে যায়।

তাসনিম নামের আরেক শিক্ষার্থীর অভিযোগ, আমরা কলেজে শান্তি মতো থাকতে পারি না। ছাত্রলীগের প্রভাব দেখিয়ে তারা অপকর্ম করে আমরা কিছু বললে আমাদের মারধর করে। আমাদের কক্ষ ছেড়ে যেতে বলে। আমরা এর বিচার চাই৷

এ বিষয়ে শেখ হাসিনা ইনস্টিটিউট অব হেলথ টেকনোলজির অধ্যক্ষ প্রদীপ কুমার শাহ বলেন, গতকাল দুই পক্ষ ছাত্রের ভেতরে মারামারি হয়। পরে পুলিশ আসে পরিস্থিতি সামাল দিতে৷ কিন্তু পুলিশ আসার পর একটি রুমে টপের ভেতর একটি গাছের চারা পাওয়া গেছে ৷ আমরা সন্দেহ করছি এটি গাঁজা গাছের চারা হবে৷ ক্যাম্পাসে দুই একজন থাকতে পারে যারা এডিক্টেট হবে হয়তো ৷ এগুলো পুলিশ জব্দ করে নিয়ে যায়৷ আমরা এই ঘটনাটির জন্য একটি তদন্ত কমিটি করেছি। আমরা গুরুত্ব দিয়ে বিষয়টি দেখছি৷ যারা এই ঘটনায় সম্পৃক্ত তাদের বিরুদ্ধে কঠিন ব্যবস্থা গ্রহণ করব।

ইসলামপুর উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ মিয়া বলেন, ছেলেগুলো আমাদের ছাত্রলীগের সদস্য। এর মধ্যে রিফাত আমাকে মামা করে ডাকে। সেখান থেকেই আমি তাকে ভাগনে বলি। এসব কার্যক্রম সম্পর্কে আমি জানতাম না। গতকাল শুনেছি ৷ আমরা আমাদের মতো তদন্ত করব বিষয়টি নিয়ে। আমাদের সদস্য যেই হোক তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে ৷

ইসলামপুর মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মাহমুদুল হাসান বলেন, গতকাল আমরা একটি ঝামেলার কথা শুনে কলেজটিতে যাই৷ সেখানে গিয়ে এসব মাদকদ্রব্য সেবনে ব্যবহৃত সরঞ্জাম উদ্ধারসহ একটি গাঁজা গাছ উদ্ধার করা হয়। আমরা বিষয়টি নিয়ে তদন্ত করছি ৷ ওই ক্যাম্পাস এলাকার নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে ৷

বিজনেস আওয়ার/০৪ জুন ২০২৩/এএইচএ

ফেসবুকের মাধ্যমে আপনার মতামত জানান: